বাসনও মেজেছেন যে বিলিয়নেয়ার

  শাহিদ খান

২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শাহিদ খান একজন বিলিয়নেয়ারের নাম। বর্তমানে তিনি শাসন করছেন মার্কিন অর্থনীতি। আর্থিক দৈন্য থাকলেও শৈশব থেকেই পড়াশোনার প্রতি তার ছিল ব্যাপক আগ্রহ। উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি জমিয়েছিলেন আমেরিকায়। শাহিদ খানের জন্ম ১৯৫০ সালের ১৮ জুলাই। বাবা ছিলেন সাধারণ ব্যবসায়ী, আর মা গণিতের অধ্যাপিকা। ১৯৬৭ সালে ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য নিজ দেশ পাকিস্তান থেকে আমেরিকায় পাড়ি জমান মাত্র ১৬ বছর বয়সে। পড়াশোনাও শেষ করেছেন সেখানে। পড়াশোনা শেষে চাকরিও পেয়েছিলেন। অথচ জীবিকার খোঁজে একসময় রেস্তোরাঁয় থালা-বাসন মাজতে হয়েছে তাকে। মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া শেষ করেন। ছাত্রজীবনের শুরুতে তিনি আমেরিকার রেস্তোরাঁয় বাসন মাজার কাজ জুটিয়ে নেন। সে সময় তার পারিশ্রমিক ছিল ঘণ্টাপ্রতি ১ দশমিক ২০ ডলার। ভাড়ার টাকা বাঁচাতে বাসায় না থেকে হোটেলে রাত কাটাতেন। অথচ এই সাধারণ মানুষটি যে কোম্পানিতে চাকরি করতেন, কিছুদিন পর নিজেই কিনে নেন সেই কোম্পানিটি। এখন তিনি আমেরিকার অর্থনীতিতে নেতৃত্বদানকারী গুরুত্বপূর্ণ এক ব্যক্তি। ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে শাহিদ ইলিনয়ের ফ্লেক্স-এন-গেট নামের এক প্রতিষ্ঠানের চাকরিতে যোগ দেন। প্রতিষ্ঠানটি তখন গাড়ির যন্ত্রাংশ বানাত। ফ্লেক্স-এন-গেট কোম্পানিতে শাহিদ খান যখন যোগ দেন, তখনো তার পড়াশোনা শেষ হয়নি। পড়াশোনা শেষে তিনি ইঞ্জিনিয়ারিং ডিরেক্টর হিসেবে সেই কোম্পানিতে যোগ দেন। ১৯৭৮ সালে কোম্পানির বাম্পার তৈরির কাজে তিনি নিযুক্ত হন। সেখানে শুধু কার ও মাইক্রো বাসের বাম্পার তৈরি করা হতো। দুই বছর চাকরি করে তার সুযোগ আসে ছোট প্রশাসন থেকে ১৬ হাজার ডলার ঋণ নেওয়ার। তার পর ১৯৮০ সালে তিনি ফ্লেক্স-এন-গেটকে প্রতিষ্ঠাতা চার্লস গ্লেসন বাটজোর কাছ থেকে কিনে নেন। আনেন কিছু ব্যবসায়িক পরিবর্তন। ছোট গাড়ির জন্য বাম্পারের ব্যবসাকে গুটিয়ে বড় গাড়ির জন্য বাম্পার বানানোর কাজে হাত দেন তিনি। তার পর মাত্র চার বছরের মাথায় ১৯৮৪ সালে শাহিদ খান টয়োটা পিকআপের জন্য অল্পসংখ্যক বাম্পার সরবরাহ করা শুরু করেন এবং একাগ্রতা আর নিষ্ঠার ফলে দ্রুত তার অর্থনৈতিক উন্নতি হয় এবং টয়োটা কোম্পানির আস্থা অর্জন করেন। ১৯৮৭ সালে ফ্লেক্স-এন-গেট টয়োটা পিকআপের একমাত্র বাম্পার সরবরাহকারী কোম্পানি হিসেবে পরিণত হন। এর দুই বছর পরই শাহিদ পুরো আমেরিকায় ব্যবহার হওয়া টয়োটা গাড়ির বাম্পার সরবরাহের একমাত্র ব্যক্তি হিসেবে পরিণত হন। তখন থেকে কোম্পানির বিক্রয়ের পরিমাণ ১৭ মিলিয়ন থেকে ২০১০ সালে এসে পেঁৗঁছায় ২ বিলিয়নে। এদিকে ২০১৩ সালের জুলাইয়ে মুহাম্মদ আল ফায়াদের কাছ থেকে কিনে নেন ইংলিশ ফুটবল লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের দল ফুলহাম এফসি। দলটির ক্রয়মূল্য ছিল ১৫০ থেকে ২০০ মিলিয়ন ডলার।

আজহারুল ইসলাম অভি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে