ছোট ব্যবসা

বেতের ফার্নিচার স্বাবলম্বী হওয়ার পথ

  অনলাইন ডেস্ক

০৪ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাজারজাতকরণ : কাঠের বিকল্প হিসেবে বেতের ফার্নিচারের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। দামে কম, ওজনে হালকা, ফলে সহজে বহনযোগ্য, রুচিশীল এবং বার্নিশ বা অ্যালামেল পেইন্ট ব্যবহারে দেখতে সুন্দর ও মজবুত থাকে বলে মানুষ এখন এ ধরনের আসবাবপত্রের দিকে ঝুঁকছে আজকাল। এসব আসবাবের মধ্যে সোফা, টুল, ডাইনিং টেবিল, বাস্কেট, ফুলদানি, ল্যাম্প শ্যাডো, শোপিস অন্যতম। একটু ভালো মানের বেতের ফার্নিচার তৈরি করতে পারলে বিদেশে রপ্তানির সুযোগ রয়েছে। ফার্নিচারের দোকানগুলোয় পাইকারি দরে বিক্রি করা যায়। আবার নিজেও শ্রমিক রেখে ফেরি করে বিক্রি করা যায়।

সম্ভাব্য পুঁজি : ২৫-৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত। মাত্র মূলধন নিয়েই এ ব্যবসা শুরু করা যায়। প্রয়োজনীয় পুঁজি না থাকলে স্থানীয় ঋণদানকারী ব্যাংক বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান (এনজিও) থেকে শর্ত সাপেক্ষে স্বল্পসুদে ঋণ নেওয়া যেতে পারে।

যোগ্যতা : বিশেষ কোনো যোগ্যতার দরকার নেই। দু-একদিন প্রশিক্ষণ নিলেই মোড়া তৈরি করা যায়। এ ছাড়া দক্ষ শ্রমিক নিয়েও পণ্য উৎপাদন

করা সম্ভব।

যা প্রয়োজন : বাঁশ, বেত, প্লাস্টিক, ফিতা, রশি, সাইকেলের পুরনো টায়ার, আঠা, বড় কাঁচি, প্লায়ার্স, দা ইত্যাদি।

প্রস্তুত প্রণালি : বাঁশ বা বেত কেটে শলা তৈরি করতে হয়। এগুলো শুকিয়ে নিয়ে খাঁচার আকৃতিতে মোড়া তৈরি করে নিতে হয়। খাঁচার উপরিভাগে চামড়া বা প্লাস্টিক দিয়ে ভালো করে মুড়িয়ে নিয়ে বেঁধে ফেলতে হবে। মোড়ার নিচের অংশকে টায়ার দিয়ে মুড়িয়ে বিক্রির উপযোগী করা হয়।

সম্ভাব্য লাভ : একটি মোড়া তৈরিতে ৮০ থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত খরচ পড়ে। বিক্রি করা যায় ১৫০ থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে