জলাতঙ্ক মারাত্মক একটি রোগ

  অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ্

০৪ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চিকিৎসাবিজ্ঞানে জলাতঙ্ক রোগের নাম রেবিস। এটি রেবিস ভাইরাসের মাধ্যমে হওয়া একটি সংক্রামক রোগ। জলাতঙ্ক মূলত কুকুর, শেয়াল, নেকড়ে বাঘ, ভালুক, বেজি ইত্যাদি প্রাণীর রোগ। সাধারণত এসব প্রাণীর কামড়ের মাধ্যমে রোগটি মানুষের মধ্যে ছড়ায়। আমাদের দেশে প্রায় শতভাগ ক্ষেত্রেই কুকুরের কামড়ের মাধ্যমে জলাতঙ্ক রোগ হয়। কামড় ছাড়াও জলাতঙ্কে আক্রান্ত প্রাণীর আঁচড়েও রেবিস ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করতে পারে। জলাতঙ্ক রোগের কোনো চিকিৎসা নেই। লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ার কয়েকদিনের মধ্যেই রোগীর মৃত্যু হয়।

জলাতঙ্কের লক্ষণ : সাধারণত রেবিস ভাইরাস শরীরে প্রবেশ করার ১০ দিন পর রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায়। তবে গড়ে ৩ থেকে ৮ সপ্তাহের মতো সময় লাগে। জলাতঙ্ক হলে পানি পান করার সময় গলার মাংসপেশি প্রচ- সংকোচন হয়। ফলে রোগী পানি পানে কষ্ট হয় এবং পরবর্তীকালে পানি দেখলে ভয় পায় (পানি দেখে ভয় পায় বলেই রেবিসের অন্য নাম জলাতঙ্ক)। রোগীর মুখ থেকে লালা পড়ে। চোখ দিয়ে পানি পড়ে। রোগী অবসাদগ্রস্ত হয়। প্যারালাইসিস হয়। কয়েকদিনের মধ্যে রোগীর মৃত্যু হয়। কুকুরের জলাতঙ্ক হলে এর মুখ দিয়ে অতিরিক্ত লালা পড়ে। বিনা প্ররোচনায় যে কাউকে কামড়ায়। প্যারালাইসিস হয়ে পায়ের ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। নিস্তেজ হয়ে ঝিমাতে থাকে। কয়েকদিনের মধ্যেই কুকুরটি মারা যায়।

প্রতিরোধের উপায় : জলাতঙ্ক রোগ অবশ্যই প্রতিরোধ করতে হবে। প্রতিরোধ করতে হলে প্রথমে কুকুরের কামড়ের ক্ষতস্থান কমপক্ষে ১৫ মিনিট ধরে প্রবহমান পানি ও সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে। এর পর যত দ্রুত সম্ভব অবশ্যই জলাতঙ্ক প্রতিরোধের জন্য টিকা দিতে হবে। আগে নাভির চারদিকে ১৪টি ইনজেকশন দেওয়া হতো। সেগুলোর ঝুঁকিও ছিল। এখন বাহুর মাংসপেশিতে পাঁচ দিনে ৫টি ইনজেকশনের মাধ্যমে এ টিকা দেওয়া হয়। এ টিকাগুলোয় ঝুঁকি নেই বললেই চলে। টিকা দেওয়ার দিনগুলো হচ্ছেÑ ০, ৩, ৭, ১৪ এবং ২৮তম দিন। ০তম দিন হলোÑ টিকা দেওয়া শুরু করার দিন। ত্বকের মধ্যে ইনজেকশন দিয়েও এ টিকা দেওয়া হয়। সে ক্ষেত্রে ইনজেকশন দেওয়া হয় ৪টি। দিনগুলো হচ্ছেÑ ০, ৩, ৭ এবং ২৮তম দিন। আগে টিকা দেওয়া আছে, এমন কোনো ব্যক্তি পরবর্তী সময় কুকুরে কামড়ালে তার ক্ষেত্রে ০, ৩ এবং ৭তমÑ এ তিন দিনে ৩ ডোজ টিকা নিতে হবে।

লেখক : বিভাগীয় প্রধান

কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগ

কমিউনিটি বেজ্ড মেডিক্যাল

কলেজ, ময়মনসিংহ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে