থাইরয়েড গ্রন্থির চিকিৎসা

  ডা. এসএম আব্দুল আজিজ

০৫ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

থাইরয়েড গ্রন্থি আমাদের গলার নিচের সামনের দিকে অবস্থিত একটি গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থি। এটি শরীরের স্বাভাবিকতা বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এ গ্রন্থি থেকে এক ধরনের হরমোন নিঃসৃত হয়, যার নাম থাইরয়েড হরমোন। থাইরয়েড হরমোন শরীরের সব অঙ্গ, যেমনÑ হৃদযন্ত্র, মস্তিষ্ক, মাংসপেশি, চামড়াসহ সব স্থানে রক্তের সঙ্গে মিশে পৌঁছে যায়। ফলে খাবারের মাধ্যমে শরীরে যে শক্তি সঞ্চিত হয়, তা শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে ব্যবহার করতে পারে, যাকে আমরা বলি মেটাবলিসম। কাজেই শরীরের মেটাবলিক প্রক্রিয়ার একটা গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বা নিয়ামক হচ্ছে স্বাভাবিক মাত্রায় থাইরয়েড হরমোনের উপস্থিতি। মেটাবলিসম যদি স্বাভাবিক না থাকে, তা হলে শরীরে নানা ধরনের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। রোগটি দুভাগে বিভক্ত। যথাÑ হাইপোথাইরয়েড (হরমোন কম নিঃসৃত হওয়া) এবং হাইপারথাইরয়েড (হরমোন বেশি নিঃসৃত হওয়া)। হরমোন স্বাভাবিক থেকেও থাইরয়েড গ্রন্থির রোগ হতে পারে। যেমনÑ সাধারণ গয়েটার। এতে শুধু থাইরয়েড গ্রন্থি আকারে বড় হয়। আরেকটি হলোÑ থাইরয়েড টিউমার। এতেও কখনো কখনো হরমোন স্বাভাবিক থাকতে পারে। যদি গলার নিচের অংশ হঠাৎ বা ক্রমে বড় হয়ে ফুলে যায়, অল্পতেই অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েন, হঠাৎ ক্ষুধা কমে বা বেড়ে যায়, খিদে বেড়ে গেলেও ওজন কমতে থাকে, শরীরের ওজন বেড়ে যায়, শরীরে মাত্রারিক্ত ঠা-া বা গরম অনুভূত হওয়া, শরীরে বেশি বেশি ঘাম হওয়া; বুক ধড়ফড় করা, গলার স্বর হঠাৎ পরিবর্তন হওয়া, শরীরের লোম বা চুল হঠাৎ বাড়তে থাকা, ত্বক কালো হয়ে যাওয়া ইত্যাদি।

থাইরয়েডের সমস্যা নির্ধারণের জন্যে ব্লাড টেস্টের প্রয়োজন হয়। হাইপোথায়রয়ডিজমের চিকিৎসা হোমিও ওষুধের মাধ্যমে করা হয়। এ জন্য অভিজ্ঞ হোমিও চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে পারেন।

লেখক : হোমিও চিকিৎসক। চেম্বার: আল-আজিজ হেলথ সেন্টার, বায়তুল আবেদ, ৫৩ পুরানা পল্টন, ঢাকা। ০১৭১০২৯৮২৮৭

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে