অঙ্গবিন্যাসের সমস্যা

  ডা. মো. রেজাউল আমিন (টিটু)

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চড়ংঃঁৎব বলতে বোঝায়, সঠিক দেহভঙ্গি অর্থাৎ দাঁড়ানো বা বসার সঠিক ভঙ্গি। দুর্বলতা, ব্যথা বা ভারসাম্যহীনতার জন্য দেহভঙ্গিজনিত বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে।

কারণ : বিভিন্ন কারণে এ সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিশেষ করে বিরতি ছাড়া দীর্ঘক্ষণ একইভাবে বসে বা দাঁড়িয়ে কাজ করায় মেরুদ- ওই নির্দিষ্ট অবস্থান অনুযায়ী বেঁকে যায়। যেমনÑ একটানা ঝুঁকে কোনো বস্তু নিচ থেকে ওপরের দিকে উঠানোয় থোরাসিক স্পাইন সামনের দিকে ক্রমে বেঁকে যেতে থাকে। এ ছাড়া শারীরিক পরিশ্রম ও আবেগজনিত কারণেও এ সমস্যা দেখা দেয়।

লক্ষণ : নড়াচড়া করতে সমস্যা, পিঠের ব্যথা, অস্বাভাবিক অনৈচ্ছিক নড়াচড়া, ত্বকে অস্বাভাবিক অনুভূতি, দুর্বলতা, পায়ে পানি আসা, কনুইয়ের মাংসপেশিতে টান ধরা, কনুইয়ে দুর্বলতা, স্বাভাবিকের তুলনায় ওজন কম হওয়া, কব্জিতে দুর্বল অনুভব করা।

ঝুঁকি : গবেষণায় দেখা গেছে, অন্যান্য পেশাজীবীর তুলনায় বাস ও ট্রাক চালকের পিঠ, ঘাড়ব্যথাসহ অন্য হাড় ও মাংশপেশির (মাস্কিউলোস্ক্যালেটাল ডিজঅর্ডারে) রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। গাড়ি চালানোর জন্য দীর্ঘসময় কোনো বিরতি ছাড়া একই ভঙ্গিতে বসে থাকায় এ সমস্যা হয়ে থাকে। আবার দীর্ক্ষক্ষণ কম্পিউটারের সামনে বসে থাকার কারণে দেহের ওপরের অংশের প্রান্তীয় বা পার্শ্বীয়ভাগ এবং ঘাড়ে ব্যথা হয়। বিশেষ করে যে হাত দিয়ে কম্পিউটারের মাউস ব্যবহার করা হয়, সে হাতে ব্যথা হয়। বিরতিহীনভাবে দীর্ঘক্ষণ অস্বাভাবিক ভঙ্গিতে বসে থাকায় পিঠব্যথার ঝুঁকি বেড়ে যায়।

পরামর্শ : সমস্যা প্রতিরোধে দীর্ঘক্ষণ বসে কাজ করার জন্য আরামদায়ক চেয়ার বেছে নিন, যাতে মেরুদ- ও কোমরে অতিরিক্ত চাপ না পড়ে। প্রয়োজনে বসার সময় আলাদাভাবে পিঠের পেছনে কুশন ব্যবহার করুন। চেয়ারে বসার পর পায়ের পাতা মেঝেতে সমান্তরালভাবে রাখুন। বসার স্থান বেশি উঁচু হলে পা রাখার জন্য ছোট টুল ব্যবহার করুন। এতে পায়ে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে এবং দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার পরও ক্লান্তি লাগে না। দৈনন্দিন ব্যবহারের জিনিস উঁচু স্থানে বা খুব দূরে না রেখে হাতের কাছে রাখুন। কেননা উঁচু স্থান থেকে হাত প্রসারিত করে কোনো জিনিস নেওয়ার চেষ্টা করলে পেশিতে চাপ পড়ে। কম্পিউটারে কাজ করার সময় কি-বোর্ড ও মাউস হাতের কাছে রাখুন, যাতে কাজ করার সময় হাত ও কাঁধে চাপ না পড়ে। একটানা কাজ না করে কাজের ফাঁকে বিরতি নিন। একভাবে অনেকক্ষণ বসে বা দাঁড়িয়ে না থেকে বসা ও দাঁড়ানোর স্থান ও ভঙ্গি পরিবর্তন করুন।

লেখক : ব্রেইন অ্যান্ড স্পাইনাল সার্জন সহকারী অধ্যাপক, নিউরো সার্জারি বিভাগ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটি

০১৮২৭০১৪৯৮২, ০১৭২০০৪৪৩১৩

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে