বাড়তি ওজন কমানো সম্ভব

  ডা. দিদারুল আহসান

১৮ জুলাই ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৮ জুলাই ২০১৭, ০০:০৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

অতিরিক্ত মেদ মানুষের জন্য খুব খারাপ। দেখতে যেমন খারাপ লাগে, তেমনি তা সুস্বাস্থ্যেরও অন্তরায়। মেদবহুলতার বিভিন্ন কারণের মধ্যে প্রথমেই আসে আচরণগত ব্যাপার। সমীক্ষায় দেখা গেছে, মেদবহুল মানুষ চিরাচরিতভাবেই কম খাদ্য গ্রহণের কথা বলে থাকেন। এটা হতে পারে ছোটখাটো দুয়েকটি খাবার, যা ঘন ঘন খাওয়া হয়। অথচ আমল দেওয়া হয় না। কিছু হরমোন সংক্রান্ত ব্যক্তি বা এন্ডোক্রাইন ডিজিজ, যেমনÑ ঈঁংযরহম’ং উরংবধংব, চড়ষুপুংঃরপ ঙাধৎু ঝুহফৎড়সব ইত্যাদিও মেদবহুলতার সঙ্গে সম্পৃক্ত। কিছু কিছু ওষুধও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে ওজন বাড়ায়। যেমনÑ ক্লোরপ্রোমাজিন জাতীয় ওষুধ (মাথা ঘোরানো বা বমির জন্য), এমিট্রিপটিলিন (দুশ্চিন্তা দূরকারক), ভ্যালপ্রোয়েট, কার্বামাজেপিন ইত্যাদি। গবেষণায় দেখা গেছে, তিনটি বিষয় ভবিষ্যতে ওজন বৃদ্ধির আশঙ্কা বাড়িয়ে তোলে। প্রথমত, বিপাকক্রিয়া কম হওয়া। দ্বিতীয়ত, উচ্চ শ্বাসনিক অনুপাত, অর্থাৎ অধিক শর্করা জাতীয় খাদ্যের বিপাক। তৃতীয়ত, ইনসুলিন হরমোন, যা ডায়াবেটিস হতে বাধা দেয়, তার কার্যক্ষমতা হ্রাস।

চিকিৎসকের পরামর্শে ওজন কমানোর ওষুধ খেলে ফল পাওয়া যায়। বর্তমানে অরলিস্টেট উপাদানে তৈরি ওষুধ চর্বি পরিপাক ও শোষণে বাধার সৃষ্টি করে চর্বিকে রক্তে শোষিত হতে দেয় না। এ ওষুধ কোলেস্টেরল ও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণেও সহায়ক।

লেখক : চর্ম, যৌন ও অ্যালার্জি রোগ বিশেষজ্ঞ

সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক

আল-রাজি হাসপাতাল, ফার্মগেট, ঢাকা

০১৭১৫৬১৬২০০, ০১৮১৯২১৮৩৭৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে