কাদের আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে হবে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে আয়কর খাতে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। ব্যবসা বা পেশার নির্বাহী কিংবা ব্যবস্থাপনা পদে নিয়োজিত বেতনভোগী কর্মীর রিটার্ন দেওয়া বাধ্যতামূলক। গতবার বাজেটে এমন কর্মকর্তাদের কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) নেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। প্রতিবারের মতো এবারও করদাতাদের সুবিধার্থে ‘আয়কর বিষয়ে অগ্রিম প্রস্তুতি নির্দেশিকা’ প্রকাশ করেছে আয়করবিষয়ক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গোল্ডেন বাংলাদেশ। নির্দেশিকা বইটি সম্পাদনা করেছেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম। সেখানে তিনি বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছেন কাদের কর বিবরণী বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

আয়কর রিটার্ন কারা দেবেন : কোনো ব্যক্তি করদাতার আয় যদি বছরে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকার বেশি হয়, তবে তাকে রিটার্ন দিতে হবে। তবে ৬৫ বছরের বেশি বয়সের মহিলা বা পুরুষের ক্ষেত্রে আয় যদি বছরে ৩ লাখ টাকার বেশি, প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বছরে ৪ লাখ টাকার বেশি আয় ও গেজেটভুক্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে আয় বছরে ৪ লাখ ২৫ হাজার টাকার বেশি হয়, তাহলে তাকে কর বিবরণী দিতে হবে। আয়ের পরিমাণ যাই হোক না কেন, কতিপয় ব্যক্তির ক্ষেত্রে রিটার্ন দাখিল বাধ্যতামূলক। এর মধ্যে রয়েছেÑ আয় বছরে করযোগ্য আয় থাকলে; আয় বছরের পূর্ববর্তী তিন বছরের যে কোনো বছর করযোগ্য আয় নিরূপিত হলে; একটি গাড়ির মালিক হলে; মূল্য সংযোজন কর আইনে নিবন্ধিত কোনো ক্লাবের সদস্য হলে; সিটি করপোরেশন, পৌরসভা অথবা ইউনিয়ন পরিষদে ব্যবসা পরিচালনার জন্য ট্রেড লাইসেন্স ও ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকলে; ডাক্তার, দন্ত চিকিৎসক, আয়কর আইনজীবী, আইনজীবী, চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট, কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টেন্ট, প্রকৌশলী, স্থপতি, সার্ভেয়ার অথবা সমজাতীয় পেশায় নিয়োজিত সব ব্যক্তি; চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ অথবা কোনো ট্রেড অ্যাসোসিয়েশনের সব সদস্য; পৌরসভা, সিটি করপোরেশন অথবা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব পদপ্রার্থী; সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা অথবা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের ঠিকাদারি কাজে টেন্ডারে অংশগ্রহণকারী সব ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান; কোম্পানি বা কোনো গ্রুপ অব কোম্পানির পরিচালনা পর্যদের পরিচালক; সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের ১৬ হাজার টাকা বা তদূর্ধ্ব মূল বেতনধারী; ধারা ৪৪-এর আওতায় কর অব্যাহতি বা হ্রাসকৃত করহার সুবিধা গ্রহণকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান (দাতব্য প্রতিষ্ঠান ব্যতীত)। এ ছাড়া নিম্নোক্ত ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠানের (ক) কোনো কোম্পানি (খ) এনজিও ব্যুরোয় রেজিস্ট্রিকৃত এনজিও (গ) কো-অপারেটিভ সোসাইটি (ঘ) ফার্ম (ঙ) অ্যাসোসিয়েশনের ব্যক্তি (চ) কোম্পানির শেয়ারহোল্ডার বা শেয়ারহোল্ডার এমপ্লয়মেন্ট (ছ) ফার্মের পার্টনারের আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়া বাধ্যতামূলক।

কখন আয়ের বিবরণ বা রিটার্ন দাখিল করবেন : রিটার্ন দাখিলের একটি অপরিবর্তনীয় তারিখ প্রস্তাব করা হয়েছে, যা কর দিবস নামে পরিচিত। ব্যক্তিশ্রেণিসহ কোম্পানি ব্যতীত অন্যান্য করদাতার জন্য তারিখটি হবে ৩০ নভেম্বর। এ তারিখের মধ্যে রিটার্ন দাখিল করতে হবে। রিটার্ন জমার সাধারণ সময়সীমা আর কোনোভাবেই বাড়ানো হবে না। তবে ঈধংব-ঃড় পধংব ভিত্তিতে আবেদন করে সময় নেওয়া যাবে, তবে সে ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সুদ প্রযোজ্য হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে