পেশাজীবীদের কাছ থেকে আদায় কম

  নাজমুল হুসাইন

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

উন্নত দেশগুলোয় আয়করের বড় অংশই আসে ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের কাছ থেকে। কোম্পানি থেকে আসে কম অংশ। বাংলাদেশের ক্ষেত্রে এই চিত্র পুরোপুরি উল্টো। এখানে আয়করের বড় অংশই আসে কোম্পানি থেকে। কম অংশ আসে ব্যক্তিশ্রেণির করদাতাদের কাছ থেকে। এর মধ্যে পেশাজীবীদের কাছ থেকে আসে আরও কম। গত বছর করা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেশাজীবীদের মধ্যে কর ফাঁকি দেওয়ার প্রবণতা রয়েছে। কর কর্মকর্তাদের দুর্নীতি ও করদাতাদের হয়রানির কারণে কর অফিসমুখী হতে চান না পেশাজীবীদের অনেকে। যে কারণে অনেকে কর দেন না। এনবিআরের সমীক্ষায় বলা হয়, আদায়যোগ্য করের ৩০-৩৫ শতাংশ আদায় হয় না। পেশাজীবীদের বেতন-ভাতা থেকে আদায় হয় মোট আয়করের মাত্র ৩-৪ শতাংশ। চাকরিজীবীদের সংখ্যা ও বেতন কাঠামো অনুযায়ী আদায় হওয়ার কথা কমপক্ষে ১০-১২ শতাংশ। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বেতন-ভাতা বাবদ উৎসে কর থেকে আয় হয়েছে মাত্র ৯০০ কোটি টাকা। অথচ নিবিড় তদারকি ও ফাঁকফোকর বন্ধ করতে পারলে এখান থেকে অন্তত চার-পাঁচ গুণ বেশি কর আদায়ের সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করে এনবিআর।

বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার মাত্র শূন্য দশমিক ৭৫ শতাংশ এখন আয়কর দেয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে