‘মেধা ও মননশীলতা থাকলে লেখালেখিতে সাফল্য আসবেই’

  শারমিনুর নাহার লেখক ও সাংবাদিক

১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

 

 

আমি খুবই আশাবাদী মানুষ। নারী শিক্ষার হার বেড়েছে। অধিকাংশ নারীই এখন লেখাপড়া করে জেনেবুঝে লিখছেন। যারা লিখছেন অধিকাংশই ভালো লিখছেন। গল্প, উপন্যাস, কবিতা, শিশুসাহিত্যসহ সাহিত্যের প্রায় সব মাধ্যমেই নারীদের এখন বিচরণ। আমি নারী লেখক কিংবা পুরুষ লেখক আলাদাভাবে ভাবতে চাই না। আমি তো মনে করি পাঁচ-ছয় বছর পর একঝাঁক তরুণ কথাসাহিত্যিক বের হবে। এখন যারা লিখছেন তাদের অনেকেই সাংবাদিকতা কিংবা বিভিন্ন ধরনের গণমাধ্যমে কাজ করছেন। তারা বাস্তবতার জায়গা থেকে লেখেন। তাদের দৃষ্টিভঙ্গি, পর্যবেক্ষণ থাকে তীক্ষè। যার প্রতিফলন দেখতে পাই তাদের লেখনীতে। অনেক নারী লেখকদের আমি দু-চারটা বই বের হওয়ার পরই ঝরে যেতে দেখি। এটা পুরুষ লেখকদের ক্ষেত্রেও দেখা যায়। অনেকের লেখার সঙ্গে হৃদয়ের টানটা সেভাবে তৈরিই হয় না, এক রকম ঝোঁকের মাথায় লেখেন। তারাই খুব দ্রুত ঝরে যান। আমি মনে করি মেধা ও মননশীলতা থাকলে লেখালেখিতে সাফল্য আসবেই। শৈশব থেকেই আমি লেখালেখির সঙ্গে সম্পৃক্ত। মায়ের অনুপ্রেরণায়ই আমার লেখালেখি জগতে পথচলা শুরু হয়েছে। সাংবাদিকতা পেশা হলেও সাহিত্যচর্চা আমার নেশা। প্রবন্ধ সাহিত্য, ছোটগল্প লেখার প্রতিই বেশি টান অনুভব করি। এবার বইমেলায় আমার প্রথম ছোটবই ‘গতকালের রোদ্রে’ এসেছে। বইটি কবি প্রকাশনী হতে প্রকাশিত হচ্ছে। এ ছাড়া অরুন্ধতী রায়ের ওপর একটি সংকলন বের হচ্ছে। সংকলনটিতে অরুন্ধতী রায়ের সাক্ষাৎকার, প্রবন্ধ ও নিবন্ধ রয়েছে। এটি বইমেলায় পনেরো তারিখের পর আসবে।

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে