বাজেটভেদে সেরা পাঁচ স্মার্টফোন

  বরকতউল্লাহ সাবা

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:৪৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

হাল আমলে বেশ দরকারি একটা গ্যাজেট স্মার্টফোন। এ স্মার্টফোন দিয়ে কত কী-ই না করা যায়! যোগাযোগ রক্ষা থেকে শুরু করে গান শোনা, গেমস, কেনাকাটাসহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাজ সারেন এর ব্যবহারকারীরা। কোথাও যাচ্ছেন? রাস্তায় জ্যামে আটকা, গাড়িতে বসে স্মার্টফোনে বুঁদ হয়ে আছেন! এখন যেন স্মার্টফোন ছাড়া চলেই না! কিন্তু প্রত্যেকের স্মার্টফোনের পছন্দ বা চাহিদা কিংবা বাজেট এক নয়। তাই ব্যক্তি এবং পরিস্থিতিভেদে স্মার্টফোনের চাহিদা আলাদা হয়ে থাকে। আজকের আয়োজনে ভিন্ন ভিন্ন চাহিদা আর বাজেটে সেরা ফোনগুলোর তালিকা নিয়ে লিখেছেন- বরকতউল্লাহ সাবা

আইফোন এক্স/১০ : যারা অ্যাপল ইকোসিস্টেম বা আইফোন ব্যবহারে অভ্যস্ত এবং তাদের জন্য সবচেয়ে ভালো ফোন হতে পারে অ্যাপলের নতুন ফোন আইফোন এক্স বা আইফোন ১০। আধুনিক প্রায় সব ফিচারই এটিতে রয়েছে। এটির অল-বডি স্ক্রিন এটিকে দিয়েছে আরও বিশেষ সৌন্দর্য। প্রায় এক হাজার ডলার মূল্যের এই ফোনটিকে এই সময়ের সবচেয়ে দামি ফোন বললে ভুল হবে না। এই বছরের নভেম্বরের ৩ তারিখ থেকে এটি ব্যবহারকারীদের হাতে আসবে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৮ : মোবাইল ফোনের দুনিয়ায় গ্রাহকদের ব্র্যান্ড বিশ্বস্ততার দিক দিয়ে অ্যাপলের পরই দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে স্যামসাং। কোম্পানিটির নতুনতম ফোন নোট ৮ এই সময়ের সবচেয়ে প্রশংসিত মোবাইল ফোন। এটিতে প্রায় সবগুলো ফিচারই রয়েছে যা আইফোন এক্সে রয়েছে। সঙ্গে রয়েছে নোট ৮-এর বিশেষ কিছু ফিচার। ক্রয়মূল্যের দিক দিয়েও এটি আইফোন এক্সের চেয়ে কম। তাই যারা আইফোনের সুবিধাগুলো চান কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড অথবা স্যামসাং পছন্দ করেন তাদের জন্য আদর্শ হলো গ্যালাক্সি নোট ৮।

গুগল পিক্সেল ২ : গত বছরের সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল ফোনগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল গুগলের পিক্সেল। ব্যবহারকারীদের পিওর অ্যান্ড্রয়েডের স্বাদ দেওয়ার জন্য গুগল প্রথমে বিভিন্ন কোম্পানির যুগলবন্দির মাধ্যমে নেক্সাস সিরিজের ফোনগুলো বাজারে আনে। তার পর গত বছর সম্পূর্ণ নিজস্ব তত্ত্বাবধানে এইচটিসির হার্ডওয়্যার ব্যবহার করে বাজারে নিয়ে আসে পিক্সেল এবং পিক্সেল এক্সএল। শোনা যাচ্ছে আগামী মাসের প্রথম দিকেই বাজারে আসছে এই ফোনগুলোর দ্বিতীয় সংস্করণ পিক্সেল ২ এবং পিক্সেল ২ এক্সএল। আশা করা যাচ্ছে, এতে থাকবে উচ্চগতিসম্পন্ন প্রসেসর, আরও ভালো ক্যামেরা, নতুন ডিজাইন এবং বাদ পড়ছে হেডফোন জ্যাক। পিওর অ্যান্ড্রয়েডপ্রেমীদের জন্য সবচেয়ে ভালো পছন্দ হতে যাচ্ছে পিক্সেল ২।

ওয়ানপ্লাস ৫ : যারা ক্রয়মূল্যের দিক দিয়ে মধ্যমমানের স্মার্টফোন ব্যবহার করতে চান তাদের জন্য সবচেয়ে ভালো হতে পারে ওয়ানপ্লাস ৫। মধ্যম মূল্যের ফোনগুলোর মধ্যে এর কনফিগারেশন অবাক করার মতো। এতে রয়েছে উচ্চগতির স্ন্যাপড্রাগন ৮২৫ প্রসেসর, ৬জিবি ও ৮ জিবি র্যাম এবং ৬৪জিবি ও ১২৮জিবি স্টোরেজ। এতে আরও রয়েছে ২০ মেগাপিক্সেল এবং ১৬ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা। এবং ১৬ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। এ ছাড়া রয়েছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা।

শাওমি এমআইএ ওয়ান : বাংলাদেশসহ অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশগুলোয় বেশিরভাগ মোবাইল ফোনের বাজেট থাকে ২২ থেকে ২৫ হাজার টাকার ভেতরে। এগুলোকে বলা হয় বাজেট ফোন। গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ওয়ান প্রজেক্টের মূল লক্ষ্য হলো ভোক্তাদের কম বাজেটের মধ্যে একটি ভালো ফোনের অভিজ্ঞতা প্রদান করা। এবার গুগল শাওমির সঙ্গে এক হয়ে বাজারে আনতে যাচ্ছে শাওমি এমআইএ ওয়ান। এতে থাকছে স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫ প্রসেসর, ৪ জিবি র্যাম, ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। এর পেছনে রয়েছে দুটি ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং সামনে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এর ছবির মানকে আইফোন ৭ প্লাসের ছবির মানের সঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে পিওর অ্যান্ড্রয়েড সফটওয়্যার। বাজেট ফোন হিসেবে শাওমি এমআইএ ওয়ান ভোক্তাদের সবচেয়ে ভালো পছন্দ বলা যেতে পারে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে