এ বছর প্রযুক্তির দৃষ্টি স্বাস্থ্যের দিকে

  আজহারুল ইসলাম অভি

১৬ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৬ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:১৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

যখন ‘হেলথটেক’ নামটা কেবল পরিচিত হতে শুরু করল কয়েক বছর আগে, তখনো হেলথটেক বা স্বাস্থ্য প্রযুক্তি সীমাবদ্ধ ছিল হার্টবিট মাপা, ডিজিটাল ওয়াকিং কোচ কিংবা পায়ের হাঁটার গতি মাপার মধ্যে। অথচ এ বছর সিইএস ২০১৮-এ দেখা গেছে তারই বিপরীত চিত্র। উদ্যোক্তা কিংবা টেক জায়ান্টরা নজর দিয়েছে স্বাস্থ্য প্রযুক্তির দিকে। এই খাতে যুক্ত হচ্ছে নানান সব ডিভাইস, নানান সব অ্যাপস। স্বাস্থ্য প্রযুক্তিতে কী কী থাকছে এবারের সিইএস ২০১৮-তে তা নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন-

সেলফ কেয়ার : বর্তমান সময়ে সেলফ কেয়ার সেবা পেতে যেসব ডিজিটাল প্রযুক্তি বের হয়েছে তা অবশ্যই সফল। স্বাস্থ্য সমস্যার লাগাম টেনে ধরতে সেলফ কেয়ার হেলথ টেকগুলো কুড়িয়েছে ব্যাপক প্রশংসা। যেসব সেলফ কেয়ার হেলথটেক থাকছে এবারের সিইএস ২০১৮-এ তার কিছু নমুনা।

মাই স্পেশাল এফ্ল্যাক ডাক : এই রোবটিক হাঁসের কাজ হচ্ছে উদ্বিগ্নতা কমিয়ে শিশুকে কেমোথেরাপি নিতে সাহায্য করা। মাথা দুলিয়ে, নাকে নাক ঘষে নানান সব আদুরে আচরণ করতে পারে রোবটটি।

অলফিনিটি এয়ার মনিটর : অলফিনিটির এয়ার মনিটরের কাজ হচ্ছে সেন্সরের সাহায্যে রুমের বাতাসের কোয়ালিটি পরিমাপ করা এবং রুমের বাতাসকে পরিশুদ্ধ করা। এর এরোমাথেরাপি ডিফিউজার দিতে পারে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রিত ২০ মিনিটের এরোমাথেরাপি সেশন যা নানান ধরনের অর্গানিক অয়েল এবং বিশুদ্ধ বাতাস দ্বারা পরিপূর্ণ।

অসকা পালস : অসকা পালসের ডিজাইন করা হয়েছে এমনভাবে যেন এটি রক্ত চলাচলে সাহায্য করতে পারে, রক্ত চলাচলকে করবে বাধামুক্ত। যাদের ক্রনিক পেইন আছে বিশেষত তাদের জন্য এই ডিভাইসটি বেশ উপকারী।

এলডারলি কেয়ার : আমাদের যাদের বৃদ্ধ আত্মীয়স্বজন আছে তাদের সব সময় দুশ্চিন্তিত থাকতে হয় বৃদ্ধ আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে। তাদের জন্যও এবারের সিএসই-তে থাকছে নানান সব স্বাস্থ্য প্রযুক্তিবিষয়ক চমক।

হেলিট হিপ’এয়ার : এখনকার সময়ে কোনো ইঞ্জুরিকেই ছোট করে দেখার অবকাশ নেই। ছোটখাটো অনেক ব্যথা থেকে দেখা দিতে পারে নানান সব জটিল সমস্যার। হেলিট হিপ’এয়ারের কাজ হচ্ছে হঠাৎ কেউ পড়ে যাওয়ার সময় এর ভেতরে থাকা এয়ার ব্যাগ তার পড়ে যাওয়া রোধ করবে, এর ভেতরে থাকা এয়ার সেন্সর খুব সহজেই পড়ে যাওয়াটা নির্ণয় করতে পারে।

ই-ভিওয়ান স্মার্ট সুজ : এবারের সিইএস ২০১৮-এর আরেকটি চমক হচ্ছে ই-ভিওয়ান স্মার্ট শু। জুতাটির কাজ হচ্ছে এটি আপনার চলাচল, হাঁটার গতি সব নজরে রাখবে এবং আপনার অনিয়ন্ত্রিত গতিকে পর্যবেক্ষণে রাখবে। যখনই আপনি অনিয়ন্ত্রিত হাঁটতে থাকবেন তখনই এতে সেট করে দেওয়া ইমার্জেন্সি কন্টাক নম্বরে অ্যালার্ট পৌঁছে যাবে এবং এর জিপিএস সুবিধার মাধ্যমে জানা যাবে রোগীর স্থানও। এটি তৈরি করা হয়েছে বিশেষ করে বৃদ্ধদের জন্যই।

হেলথ মনিটরিং : হেলথ মনিটরিং সার্ভিসে থাকছে স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণের নানা সুবিধা। এসব ডিভাইস আপনার স্বাস্থ্যের যত খোঁজখবর আছে সবই সে সংগ্রহে রাখবে।

লেনোভো ভাইটাল মটোরোলা মটো মড : এই ভাইটাল মটো মডটির কাজ হচ্ছে আপনার হার্টবিট, শ্বাস-প্রশ্বাসের মাত্রা এবং পরিমাপ, শরীরের তাপমাত্রা, রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণ এবং ব্লাডপ্রেসার পরিমাপ করা।

নিমা পিনাট সেন্সর : যাদের বাদামে এলার্জি আছে তাদের জন্য এই ডিভাইস। এটি খাদ্যে বাদামের অবস্থান জানান দেয়।

সেনসিও এয়ার : এই ডিভাইসটি খুব সহজেই জানিয়ে দেবে কখন এলার্জি দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন। এই ফুটবল আকৃতির যন্ত্রটি ঘরের ভেতরে ময়লা, ধুলোবালি, ঘাস, অন্যান্য উপাদানের পরিমাণ পরিমাপ করে আপনাকে জানিয়ে দেবে কখন এলার্জির প্রকোপ বাড়তে পারে। যাদের এলার্জির সমস্যা আছে তাদের কথা মাথায় রেখেই বানানো হয়েছে সেনসিও এয়ার।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে