পরমাণু অস্ত্রমুক্তি আন্দোলনে শান্তির নোবেল

  আমাদের সময় ডেস্ক

০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পারমাণবিক অস্ত্র বিলোপে প্রচার চালিয়ে যাওয়া জোট আইসিএএন পেল এ বছরের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার। নরওয়ের স্থানীয় সময় শুক্রবার বেলা ১১টায় ইন্টারন্যাশনাল ক্যাম্পেইন টু অ্যাবোলিশ নিউক্লিয়ার ওয়েপনস সংগঠনটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে শান্তিতে নোবেলজয়ী ঘোষণা করা হয়। নোবেলের নিজস্ব সাইট নোবেলপ্রাইজ ডট অর্গ এ তথ্য দিয়েছে।

পুরস্কার ঘোষণা করতে গিয়ে নোবেল কমিটি পারমাণবিক সংঘাতের ঝুঁকির ব্যাপারে সতর্ক করেছে। নোবেল শান্তি কমিটির নেতা বেরিট রেইস অ্যান্ডারসন বলেন, ‘আমরা এখন এমন এক বিশ্বে বাস করছি, যেখানে পূর্ববর্তী সময়ের চেয়ে আরও বৃহত্তর পরিসরে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে।’

নোবেল কমিটি জানায়, পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের কারণে সৃষ্ট ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের প্রতি মনোযোগ আকর্ষণ এবং এ ধরনের অস্ত্র বিলোপে একটি চুক্তির জন্য আইসিএনএর প্রচেষ্টার স্বীকৃতি হিসেবে এ সংগঠনকে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বেরিট রেইস আরও জানান, পুরস্কার জয়ের খবরে আইসিএএন নেতা বিট্রিস ফিন ‘আনন্দ’ প্রকাশ করেছেন।

আইসিএএন ১০০টিরও বেশি দেশে তৃণমূল পর্যায়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। সর্বপ্রথম অস্ট্রেলিয়ায় কার্যক্রম শুরু করলেও সংগঠনটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয় ২০০৭ সালে ভিয়েনায়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির সদর দপ্তর সুইজারল্যান্ডের জেনেভায়।

পুরস্কার জয়ের পর ফেসবুকে একটি বিবৃতি দিয়েছে আইসিএএন। এতে বলা হয়, ‘যারা পারমাণবিক অস্ত্র রোধে সোচ্চার থেকেছেন, এসব অস্ত্র রাখার বৈধ উদ্দেশ্য নেইÑ দাবি করে যারা সরব থেকেছেন এবং বিশ্ব থেকে এ ধরনের অস্ত্র বিলোপ করতে যারা সোচ্চার থেকেছেন, সেই লাখ লাখ ক্যাম্পেইনার ও বিশ্বের উদ্বেগী মানুষকে পুরস্কারটি উৎসর্গ করা হচ্ছে।’

এ বছর এ পর্যন্ত শান্তিসহ মোট ৫টি ক্যাটাগরিতে নোবেল পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ৯ অক্টোবর অর্থনীতিতে নোবেলজয়ীর নাম ঘোষণার মধ্য দিয়ে এ বছরের পুরস্কার ঘোষণার আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে। আর বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে ১০ ডিসেম্বর।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে