ব্লুমফন্টেইনে শুরুতেই ব্যাকফুটে বাংলাদেশ

  অনলাইন ডেস্ক

০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:৩৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রথম দিনের খেলা শেষে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম নিজেই এলেন সংবাদমাধ্যমের সামনে। চোখে-মুখে হতাশার ছাপ। প্রথম টেস্টের মতো ব্লুমফন্টেইনেও প্রথম দিনেই ব্যাকফুটে বাংলাদেশ। বাদামি ঘাসের বাউন্সি উইকেটে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা রান-উৎসবে মেতেছেন। টস জিতে মুশফিকের নেওয়া ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত যথার্থ প্রমাণ করতে পারেননি বোলাররা। পেস-সহায়ক উইকেটের সুবিধা ইনিংসের শুরুতে কাজে লাগাতে পারেননি মোস্তাফিজ-রুবেলরা। প্রথম সেশনেই বিনা উইকেটে ১২৬ রান তুলে নেয় এলগার-মারক্রামের উদ্বোধনী জুটি। পরের সেশনে বাংলাদেশ একটি উইকেট পেলেও ততক্ষণে এ জুটি দুইশ রান পেরিয়ে যায়। মুশফিকের মতে, প্রথম সেশনেই পিছিয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। বোলারদের নিয়ে চরম হতাশা প্রকাশ করে মুশফিক জানালেন, ঠিক জায়গায় বোলিং করলে উইকেটের সম্ভাবনা তৈরি হতো। মানসম্পন্ন বোলিং করতে পারেননি বোলাররা। শুরুতে সঠিক লাইন-লেংথ খুঁজে পায়নি তারা। বাংলাদেশের বোলারদের আবারও হতাশায় ডুবিয়ে রানের পাহাড় গড়ার পথে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম দিনশেষে এলগার-মারক্রামের সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪২৮ রান তুলে নেন স্বাগতিকরা। তবে আজ নতুন দিনে নতুন বলে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন টাইগারদের।
বোলিং বিবর্ণের দিনে আরেকটি দুঃসংবাদ এসেছে। স্লিপে ফিল্ডিং করতে গিয়ে হাঁটুতে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়েন ইমরুল কায়েস। প্রাথমিক চিকিৎসা নিলেও চা-বিরতির পর আর মাঠে নামেননি। মুশফিক জানান, খালি চোখে দেখা যায়Ñ ইমরুলের হাঁটুতে চিড় ধরেনি কিংবা ভাঙেনি। চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। ফিট থাকলে আজ মাঠে নামবেন ইমরুল। প্রথস টেস্টেও তামিম এভাবেই ইনজুরিতে পড়ে ওপেনিংয়ে ব্যাট করতে নামতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত সিরিজ থেকেই বাদ পড়েছেন তামিম। তামিমহীন ম্যাচে ওপেনিংয়ে ভরসা ইমরুল; কিন্তু তাকে নিয়েও এখন দুশ্চিন্তায় বাংলাদেশ।
আগের ম্যাচে টস-বিতর্কে জড়িয়েছিলেন বাংলাদেশের কাপ্তান মুশফিক। ব্লুমফন্টেইনে ভুল করেননি। টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেওয়ার যথার্থ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাদামি ঘাসের বাউন্সি উইকেট। যথেষ্ট পেস ও সুইং পাবেন বোলাররা; পিচ রিপোর্টের সময় দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি শন পোলকও বলেছিলেন, আগে ফিল্ডিং নেওয়াটাই ভালো সিদ্ধান্ত। ম্যাঙ্গাউং ওভালের গ্রাউন্ড ম্যানেজার নিকো প্রিটোরিয়াসেরও ভাষ্য ছিল একই। উইকেটের সুবিধা আদায় করে নিতে পারেননি বাংলাদেশের পেসাররা। মোস্তাফিজ, রুবেল ও শুভাশীষের বোলিংয়ের সামনে স্বাচ্ছন্দ্যেই ব্যাটিং করে যান স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। দিনের প্রথম সুযোগ আসে ৫০তম ওভারে। চা-বিরতির আধাঘণ্টা আগে মোস্তাফিজের ওভারের শেষ বলে ক্যাচ দেন এলগার। লাফিয়ে ওঠা বল গ্ল্যাভসে নিতে পারেননি লিটন দাস। এর তিন ওভার পর বহু প্রতীক্ষিত উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। ৫৪তম ওভারে শুভাশীষের চতুর্থ বলে আবারও ক্যাচ দেন এলগার। লেগে দৌড়ে এসে ক্যাচটি নেন মোস্তাফিজ। স্বাগতিকদের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ২৪৩ রানে। আউট হওয়ার আগে টেস্ট ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি তুলে নেন এলগার (১১৩)। চলতি বছর এক হাজার রান সংগ্রহের মাইলফলক স্পর্শও করেন এই ওপেনার। কয়েক ওভার পর মারক্রামের স্ট্যাম্প গুঁড়িয়ে দেন রুবেল হোসেন। পচেফস্ট্রুম টেস্টে অভিষেকে ৩ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পেলেও গতকাল আক্ষেপ ঘুচেছে মারক্রামের। ১৪৩ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন এ নবীন ওপেনার। এ দুই ওপেনার সাজঘরে ফেরার পর বাভুমাও দ্রুত আউট হন মোস্তাফিজের বলে। ২৮৮ রানে তিন উইকেট হারনো দক্ষিণ আফ্রিকাকে বড় সংগ্রহের পথে নিয়ে যান হাশিম আমলা ও ডু প্লেসিস। আমলা ৮৯ ও প্লেসিস ৬২ রানে অপরাজিত থাকেন।
তামিম-সাকিবহীন ব্লুমফন্টেইন টেস্টে বাংলাদেশের বোলিংয়ে আক্রমণে পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। টেস্ট অভিষেকের পর প্রথমবারের মতো দল থেকে বাদ পড়েন তরুণ অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। একাদশ থেকে বাদ পড়েন তাসকিন, শফিউল। পেস আক্রমণে রুবেল হোসেন ও শুভাশীষ রায়কে নেওয়া হয়। একাদশে ফেরেন বিশেষজ্ঞ স্পিনার তাইজুল ইসলাম; কিন্তু নতুন বোলিং আক্রমণ নিয়েও ব্লুমফন্টেইনে প্রথম দিন হতাশায় পুড়েছে বাংলাদেশ।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে