যেসব বিনিয়োগে রেয়াত

  আবু আলী

১৫ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নির্দিষ্ট কয়েকটি খাতে করদাতার বিনিয়োগ বা চাঁদা থাকলে বিনিয়োগজনিত কর রেয়াত পাবেন। বর্তমানে ২৪ খাতে বিনিয়োগ বা দান করলে কর ছাড় পাওয়া যায়। এর মধ্যে রয়েছে জীবন বীমার প্রিমিয়াম, সরকারি কর্মকর্তাদের প্রভিডেন্ট ফান্ডে চাঁদা, স্বীকৃতি ভবিষ্যৎ তহবিলে নিয়োগকর্তা বা কর্মকর্তার চাঁদা, কল্যাণ তহবিল ও গোষ্ঠী বীমা তহবিল, সুপার এনুয়েশন ফান্ডে দেওয়া চাঁদা, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ডিপোজিট পেনশন স্কিমে বছরে সর্বোচ্চ ৬০ হাজার টাকার বিনিয়োগ, সঞ্চয়পত্র ক্রয়, শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত শেয়ার বা মিউচ্যুয়াল ফান্ড ক্রয়, ট্রেজারি বন্ডে বিনিয়োগ, জাকাত তহবিলে দান এবং ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকার মধ্যে ল্যাপটপ বা কম্পিউটার কিনলে জাতির জনকের স্মৃতি রক্ষায় নিয়োজিত জাতীয় পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানে অনুদান, এনবিআরের অনুমোদিত দাতব্য হাসপাতালে দান, প্রতিবন্ধীদের প্রতিষ্ঠানে দান, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে দান, আগা খান ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্কে দান, আহ্ছানিয়া ক্যানসারে দান, আইসিডিডিআরবিতে দান, সাভারের সিআরপিতে দান, শিক্ষা ও সামাজিক খাতে ব্যয়, এশিয়াটিক সোসাইটিতে দান এবং মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি রক্ষার্থে নিয়োজিত জাতীয় পর্যায়ের প্রতিষ্ঠানে অনুদান।

রেয়াতের জন্য অনুমোদনযোগ্য পরিমাণ : করযোগ্য মোট আয়ের ২৫ শতাংশ, রেয়াত পাওয়ার যোগ্য খাতে করদাতার প্রকৃত বিনিয়োগ বা চাঁদার পরিমাণ এবং দেড় কোটি টাকাÑ এ তিনটির মধ্যে যেটি কম হবে, সে পরিমাণ কর রেয়াত পাওয়া যাবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে