নেপিদোতে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক

রোহিঙ্গা ফেরাতে আজ চুক্তি হতে পারে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ০০:৫০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রাণভয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরত পাঠাতে চুক্তির খসড়া নিয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু করেছে বাংলাদেশ। গতকাল সকালে বাংলাদেশ চুক্তির একটি খসড়া মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করে। পরে এ নিয়ে দুদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সচিব পর্যায়ে আলোচনা শুরু হয়। বর্তমানে মিয়ানমার সফরে আছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক।

মিয়ানমারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সফিউর রহমান বলেন, ‘বুধবার সকালে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে এবং পরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা আশা করছি, বৃহস্পতিবার (আজ) একটি চুক্তিতে উপনীত হতে পারব।’

উল্লেখ্য, এর আগে ১৯৭৮ সালে দুদেশ চুক্তি করে। সেই চুক্তির অধীনে ২ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ছয় মাসের মধ্যে ফেরত গিয়েছিল। পরে ১৯৯২ সালে দুদেশের মধ্যে আরেকটি সমঝোতা হয়, যার অধীনে ২০০৫ সাল পর্যন্ত ২ লাখ ৩৬ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমারে ফেরত যায়।

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর জন্য দুপক্ষের মধ্যে সম্প্রতি ছয়বার প্রস্তাব পাল্টাপ্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রথম প্রস্তাব দেওয়া হয় ২৩ সেপ্টেম্বর। মিয়ানমার ইউনিয়নমন্ত্রীর ঢাকা সফরের সময়ে ২ অক্টোবর ফের আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাব দেওয়া হয়।

মিয়ানমার গত ২০ অক্টোবর এর জবাব দিলে বাংলাদেশ পুনরায় ২ নভেম্বর পাল্টাপ্রস্তাব দেয়। মিয়ানমারের পক্ষ থেকে ৬ নভেম্বর পাল্টাপ্রস্তাব দেওয়া হলে বাংলাদেশ দুদিন পর এর জবাব দেয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল জাতীয় সংসদে বলেছেন, রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনের লক্ষ্যে একটি দ্বিপক্ষীয় চুক্তি সম্পাদনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ একটি খসড়া হস্তান্তর করেছে। এটি নিয়ে দুই দেশই পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে।

মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি দুদিন আগেই বলেছেন, বাংলাদেশের সঙ্গে আলোচনার মধ্য দিয়ে চলতি সপ্তাহেই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রশ্নে একটি সমঝোতায় পৌঁছানো সম্ভব হবে বলে তিনি আশা করছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে