চট্টগ্রামে রাজস্ব কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

  চট্টগ্রাম ব্যুরো

২০ মে ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা আবদুল মমিন মজুমদারকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল শুক্রবার নগরীর আগ্রবাদ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে তিনি ঢাকার গুলশান সার্কেল-৪ এ রাজস্ব কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। এর আগে তিনি চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা পদে কর্মরত ছিলেন।

দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম ১-এর উপ-সহকারী পরিচালক সাধন চন্দ্র সূত্রধর জানান, আবদুল মমিন ও তার স্ত্রী সেলিনা জামানের বিরুদ্ধে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ছাড়াও ৪০ লাখ ২৩ হাজার ৮৫৮ টাকার সম্পদ গোপনের অভিযোগ রয়েছে।

সেলিনা জামানের দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে নিজ নামে ২০০৩ সালের ৩০ ডিসেম্বর হালিশহর এল ব্লকে তিন কাঠা জমি ও নির্মাণাধীন ভবন ২০ লাখ টাকায় কেনেন বলে জানায়। এরপর সেখানে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ছয়তলা বাড়ি নির্মাণের অনুমোদন নিয়ে আটতলা ভবন তৈরি করেন তিনি। যার নির্মাণব্যয় দেখান ৬৫ লাখ ৪২ হাজার ৯৮০ টাকা; কিন্তু গণপূর্ত বিভাগের জরিপে ভবনটির প্রকৃত নির্মাণব্যয় ১ কোটি ৫ লাখ ৬৬ হাজার ৮৩৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়। অর্থাৎ গণপূর্ত বিভাগ কর্তৃক নিরূপিত নির্মাণব্যয় অপেক্ষা বাড়িটির নির্মাণব্যয় ৪৩ লাখ ২৩ হাজার ৮৫৮ টাকা কম দেখিয়েছেন সেলিনা জামান। দুদকে দাখিল করা সম্পদ বিবরণীতে ইচ্ছাকৃতভাবে তিনি মিথ্যা তথ্য প্রদান করেছেন, যা দুদক আইন ২০০৪-এর ২৬(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

সেলিনা জামানের আয়কর নথি পর্যালোচনায় ২০০৪-০৫ হতে ২০১১-১২ করবর্ষ পর্যন্ত তার মোট আয় পাওয়া যায় ৭৪ লাখ ২৭ হাজার ১৯ টাকা। এর মধ্যে গৃহ সম্পত্তি, ডিপিএস, বাবার পেনশন ও মায়ের জমি বিক্রি থেকে প্রাপ্ত ২২ লাখ ৬৪ হাজার ৯০০ টাকা বৈধ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। রেকর্ডপত্র পর্যালোচনায় দেখা যায়, সেলিনা জামান ১ কোটি ২৯ লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৮ টাকার স্থাবর সম্পদ ও ৫ কোটি ৬৩ লাখ ৪৯৭ টাকার অস্থাবর সম্পদ অর্জন করেছেন। একই সময়ে তিনি ২৩ লাখ ১৯ হাজার ৫০০ টাকা ব্যয় করেছেন। সেলিনা জামানের নামে আয়কর নথি থাকলেও তিনি প্রকৃতপক্ষে কোনো বৈধ উপার্জন করেন না। তার স্বামী কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা আবদুল মমিন মজুমদারের অবৈধ উপার্জন দিয়ে সেলিনা জামানকে অসাধু উপায়ে এই সম্পদ অর্জনে সহায়তা করেছেন বলে দুদক সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

দুদক চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মোশাররফ হোসেন মৃধা আমাদের সময়কে জানান, দুদক অনুসন্ধান করে কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা মমিন মজুমদার এবং তার স্ত্রী সেলিনা জামানের নামে ১ কোটি ২৬ লাখ টাকার অবৈধ স¤পদ অর্জনের তথ্য পায়। একই সঙ্গে ৪০ লাখ ২৩ হাজার ৮৫৮ টাকার স¤পদ গোপনের অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় মমিনকে নিজের নামে কেনা হালিশহর এল ব্লকের তিন নম্বর রোডের ছয়তলা বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় তার স্ত্রীকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। মমিনকে চট্টগ্রাম ডবলমুরিং থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে