রোহিঙ্গা শিশুদের ৭৮ হাজার কাপড় দেবে ব্র্যাক

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মিয়ানমারের রাখাইন থেকে চলে আসা অসহায় শিশুদের জন্য উখিয়া ও টেকনাফের ১০ আশ্রয় কেন্দ্রে ৭৮ হাজার কাপড় বিতরণ করবে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। ইতোমধ্যে এসব কেন্দ্রে আশ্রয় নেওয়া ১০০০ শিশুকে এসব কাপড় দেওয়া হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বাকি কাপড়গুলো বিতরণ করা হবে। সেসঙ্গে রাখাইন থেকে আসা অসহায় ১৭০০ পরিবারকে বসবাসের জন্য মাদুর দেওয়া হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্র আলোকময় করতে ৩৪৫ পরিবারে সৌর বাতি দেওয়া হয়েছে। গতকাল ব্র্যাক থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

ব্র্যাকের সেন্ট্রাল মিডিয়া ইউনিটের ফজলুল ইসলাম জানান, মিয়ানমার থেকে আগত প্রায় ৫ লাখ ৭ হাজার মানুষের মধ্যে ৬০ ভাগই শিশু। এই সংকটপূর্ণ সময়ে শিশুরা সবচেয়ে বেশি বঞ্চনার শিকার হয়। এই পরিস্থিতিতে ব্র্যাক ভুক্তভোগী শিশুদের জন্য এই উদ্যোগে গ্রহণ করেছে। বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থার উদ্যোগের পাশাপাশি দেশের পাঁচটি শিল্প-কারখানার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এসব কাপড় দানে সহায়তা করেন। কারখানাগুলো হচ্ছেÑ হা-মিম গ্রুপ, গ্রাফিক্স টেক্সটাইল, ইকোটেক্স লিমিটিড, ফখরুদ্দিন টেক্সটাইল মিলস, স্যাটার্ন টেক্সটাইলস। এ ছাড়া আড়ংয়ের মাধ্যমে এসএফ ডেনিম অ্যাপারেলস লিমিটেড কাপড় দানে সহায়তা করে। শিশুদের মানসিক চাপ কমাতে ইতোমধ্যে ৫৬টি শিশুবান্ধব কেন্দ্র স্থাপন করে প্রতিদিন ৩ হাজারেরও বেশি শিশুকে খেলাধুলা ও গল্প বলার মাধ্যমে বিনোদনমুখী কার্যক্রম পরিচালনা করছে ব্র্যাক। এসব আশ্রয় কেন্দ্রে ব্র্যাক গত বুধবার (৪ অক্টোবর, ২০১৭) পর্যন্ত মানুষের বিশুদ্ধ পানি ব্যবহারের জন্য ৮৭৬ নলকূপ বসিয়েছে। এ ছাড়া স্থাপন করা হয়েছে ২৭৬০ শৌচাগার। ব্র্যাকের ৬০টি ভ্রাম্যমাণ সেবা কেন্দ্র থেকে এই পর্যন্ত ৭০ হাজার ৪২৯ জন অসহায় মানুষকে এ স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়েছে।

সারা দেশ থেকে একত্র হওয়া ব্র্যাকের ৬০০-এরও বেশি কর্মী সহায়তা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। মূলত নারী ও শিশুদের জন্য জরুরি স্বাস্থ্যসেবা, টিউবওয়েল এবং শৌচাগার স্থাপনের মাধ্যমে নিরাপদ পানি, পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত উপকরণ সরবরাহ ও শিশুবান্ধব পরিসর গড়ে তোলায় কাজ করছেন তারা। এই কার্যক্রম চলছে আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা (আইওএম), ইউনিসেফ, ডব্লিউএফপি, অসএইড, ডিএফআইডি এবং গ্লোবাল ফান্ডের সমন্বয় ও সহযোগিতায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে