নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

  রংপুর প্রতিনিধি

০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুরের মিঠাপুকুরে নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে এক পাষ- স্বামী। এ ঘটনায় নিহতের ভাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ঘাতক স্বামী ও তার স্বজনরা পালিয়েছেন। পুলিশ কবিরন নেছা (২৭) নামে ২ সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত করেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে তার লাশ দাফন করেছে স্বজনরা।

জানা গেছে, উপজেলার ইমাদপুর ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের মেয়ে কবিরন নেছার (২৭) সঙ্গে প্রায় ১০ বছর আগে বিয়ে হয় ইমাদপুর পশ্চিমপাড়া (গয়েশপুর) গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে ভ্যানচালক শরিফুল ইসলামের (৩৫)। তাদের দাম্পত্য জীবনে ২টি ছেলেমেয়ে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে মদ্যপ স্বামী কারণে অকারণে কবিরনকে মারপিট করত। নেশার টাকা জোগান দিতে চাপ দিত কবিরনকে। অনেক সময় মানুষের বাড়িতে কাজ করে স্বামীর হাতে টাকা তুলে দিতেন ওই গৃহবধূ। কোনোদিন টাকা দিতে না পারলে কবিরনের ওপর নেমে আসত নির্মম নির্যাতন। শরিফুল বেধড়ক পেটাত। সম্প্রতি, নেশা করার টাকা জোগান দিতে বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দেয় শরিফুল। এতে অস্বীকৃতি জানালে কবিরনকে বেদম মারপিট করে। এর জের ধরে গত বৃহস্পতিবার শরিফুল স্ত্রী কবিরনকে রড ও লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এতে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিনা চিকিৎসায় স্বামীর বাড়িতে পড়ে থেকে এক পর্যায়ে কবিরন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। অবস্থা বেগতিক দেখে শরিফুল ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়। প্রতিবেশীরা স্থানীয় বৈরাতী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। গতকাল শুক্রবার নিহতের বাবার বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়েছে।

মিঠাপুকুর থানার ওসি মোজাম্মেল হক জানান, এ ঘটনায় নিহতের ভাই আকমল হোসেন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামিরা পলাতক থাকায় গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে গ্রেপ্তারের জন্য জোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে