পিরোজপুরে নির্মিত হবে অষ্টম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু

  খালিদ আবু, পিরোজপুর

২২ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বরিশাল-পিরোজপুর-বাগেরহাট-খুলনা আঞ্চলিক মহাসড়কে নিরবচ্ছিন্ন ও দ্রুত যোগাযোগব্যবস্থা গড়ে তুলতে নির্মিত হতে যাচ্ছে অষ্টম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু।

পিরোজপুরের কচা নদীর বেকুটিয়ায় সেতুটি নির্মিত হবে। ১৬ অক্টোবর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় সেতু নির্মাণের জন্য প্রকল্পটি অনুমোদিত হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব পাচ্ছে সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ।

সরকারের ওই উদ্যোগে স্বাগত জানিয়ে পিরোজপুর জেলা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক ও পৌরসভার মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, পিরোজপুর তথা দক্ষিণ অঞ্চলবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ওই সেতুটি নির্মিত হলে বরিশাল থেকে খুলনা পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। বেকুটিয়া ফেরিঘাটে জানজটের দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবেন ওই পথে চলাচলকারী হাজারো যাত্রী। সেতুটি নির্মিত হলে তৃতীয় পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে মোংলা সমুদ্রবন্দর পর্যন্ত সড়ক যোগাযোগও স্থাপিত হবে। পিরোজপুর সওজ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম জানান, ২০২১ সালের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সওজ। ওই সেতু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৮২১ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। তিনি জানান, সেতুটি নির্মিত হবে পিরোজপুর সদর উপজেলার কুমিরমারা পয়েন্ট থেকে কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া পর্যন্ত। মূল সেতু হবে ৯৯৮ মিটার। এপ্রোচ সড়ক হবে বেকুটিয়া প্রান্তে ৮০০ মিটার ও কুমিরমারা প্রান্তে ১ হাজার ৪০০ মিটার। সেতুর জন্য নির্ধারিত এলাকায় জমি অধিগ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এসএম সোহরাব হোসেন জানান, সেতুটি নির্মাণের প্রস্তাব পাওয়ার পর তারা সেখানে সরেজমিন পরিদর্শন করেছেন। ওই এলাকার প্রায় ৩৩ একর জমি অধিগ্রহণ করা হতে পারে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে