ঢাকায় শুরু লিট ফেস্ট

অংশ নিচ্ছেন ১৮ দেশের ৬৬ লেখক

প্রকাশ | ১৮ নভেম্বর ২০১৬, ০০:০০

চপল মাহমুদ

শিল্প-সাহিত্যপ্রেমীদের বৃহৎ উৎসব ‘ঢাকা লিটারারি ফেস্টিভ্যাল’। ১৮ দেশ থেকে ৬৬ বিদেশি এবং দেড় শতাধিক বাংলাদেশি সাহিত্যিক, লেখক, গবেষক ও সাংবাদিকের অংশগ্রহণে বাংলা একাডেমি চত্বরে শুরু হলো এ উৎসব। গতকাল বেলা ১১টায় বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তন তথা প্রধান মঞ্চে এই আয়োজনের উদ্বোধন করেন নোবেলজয়ী লেখক ভিএস নাইপল ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান এবং ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক কাজী আনিস আহমেদ, সাদাফ সায্ ও আহসান আকবর।

উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতেই সংগীতশিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার নির্দেশনায় রবীন্দ্রসংগীত পরিবেশন করেন সুরের ধারার শিল্পীরা। এর পর শুরু হয় মূল পর্বের অনুষ্ঠান। শুরুতেই বক্তব্য রাখেন ঢাকা লিট ফেস্টের তিন পরিচালক যথাক্রমেÑ কাজী আনিস আহমেদ, আহসান আকবর ও সাদাফ সায্। কাজী আনিস আহমেদ ধন্যবাদ জানান বিদেশি অতিথি ও উপস্থিত সবাইকে। পাশাপাশি তিনি লিট ফেস্টের আয়োজন ও আকর্ষণগুলো তুলে ধরেন।

প্রথম দিনের আয়োজনে দুপুর ১২টায় ছিল মেহেদি হাসান ও তার বন্ধুদের পরিবেশনায় গান। একই সময় কসমিক টেন্টে প্রদর্শিত হয় জয়া আহসান অভিনীত ইন্দ্রনীল রয় পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসার শহর’।

বেলা ১টায় মূলমঞ্চে বিশ্বসাহিত্য নিয়ে ‘ওয়ার্ল্ড ফিকশন : হিডেন রিয়ালিটি’ শীর্ষক আলোচনায় বসেন ড্যানিয়েল হান, নিকোলাস, লেজার্ড, আনজুম হাসান ও নায়েল এলতোখি। কেকে টি স্টেজে ইমাজিনিং হিস্টোরি শীর্ষক আলোচনায় অংশ নেন সাজিয়া ওমর, বাপ্পাদিত্য চক্রবর্তী ও সাদ জেড হোসাইন। সে সময় ব্যান্ড তারকা মাকসুদ হক স্টিভেন পাওলার লনে কবিতা পড়েন।

বেলা ২টায় প্রধান মঞ্চে বারখা দত্ত ও জেফরি ইয়াং বেন জোদাহ ও মার্সিয়া লিন্যাক্স কিউলি আমেরিকার বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেন। একই সময় বিজ্ঞানী আবেদ চৌধুরী কেকে টি স্টেজে নিওরোসায়েন্সের অ্যাসথেটিক্স নিয়ে আলোচনা করেন।

এ সময় লনে সাম্প্রদায়িকতার এপার-ওপার নিয়ে কথা বলেন শামসুজ্জজামান খান, জহর সেন মজুমদার, মাসুদুল হক, সেমন্তী ঘোষ ও আহমেদ রেজা। একই সময়ে ব্র্যাক স্টেজে চলবে ক্রাইম পেজ দ্য আর্ট অব সাসপেন্স শীর্ষক একটি সেশন।

বিকাল সাড়ে ৩টায় বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত ‘বিষাদসিন্ধু’র বিশেষ অনুবাদ নিয়ে ফখরুল আলম আলোচনা করেন সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের সঙ্গে। সে সময় লনে কবিতা পড়েন প্রতিথযশা বাংলাদেশি কবিরা। অন্যদিকে ব্র্যাক স্টেজে ইরেশ যাকের আলোচনা করেন অন্তরা গাঙ্গুলির বই ‘তনয়া তানিয়া’ নিয়ে। বটতলায় আবৃত্তি পরিষদের কবিতা আবৃত্তি চলে তখন। একই সময়ের সবচেয়ে আকর্ষণীয় সেশন ছিল নোবেলজয়ী ভিএস নাইপলের ওপর নির্মিত বিশেষ ডকুমেন্টারি দ্য স্ট্রেঞ্জ লাক অব নাইপল।

বিকাল ৪টা ৪৫ মিনিটে প্রধান মঞ্চে বারখা দত্তের সঙ্গে সাদাফ সায্ আলোচনা করেন তার বিতর্কিত গ্রন্থ দ্য আনকোয়াইট ল্যান্ড নিয়ে। একই সময় ভ্রমণপিপাসু অস্ট্রেলিয়ান লেখক টিম কোপ কেকে স্টেজে বসেন জার্নি অ্যান্ড কোয়েস্ট অব ইন ট্রুথ নিয়ে। অন্যদিকে পুলিৎজার বিজয়ী কবি বিজয় শেষাদ্রি বসেন ব্র্যাক স্টেজে জেফরি ইয়াংয়ের সঙ্গে আমেরিকার কবিতা নিয়ে। একই সময়ে রিচার্ড বিয়ার্ড লাইভ এডিটিংয়ের ওপর কসমিক টেন্টে বিশেষ ওয়ার্কশপ করান।

৬টা ১৫ মিনিটে মূলমঞ্চে প্রয়াত সাহিত্যিক সব্যসাচী সৈয়দ শামসুল হকের জীবনী নিয়ে আলোচনা করেন দ্বিতীয় সৈয়দ হক, সাজ্জাদ শরীফ, আহমেদ মাজহার ও পারভেজ হোসেন। সে সময় শামসুল হক রচিত নীলদংশনের একাংশ মঞ্চস্থ হয় প্রধান স্টেজে। এদিকে বটতলায় বাউলিয়ানা নিয়ে বসেন সংগীত তারকা মাকসুদ হোসেন।

আন্তর্জাতিক সাহিত্যিক পরিম-লে বাংলাদেশের সাহিত্যকে তুলে ধরতে এই উৎসবের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন আহসান আকবর।

বাংলাদেশের দুই হাজার বছরের সাহিত্যিক-সাংস্কৃতিক ও ঐতিহ্যের কথা স্মরণ করে উৎসবটিতে সেসব ঐতিহ্যবাহী লোকসাহিত্যের গানগুলোকে স্থান করে দেওয়ার কথা জানান সাদাফ সায্।

উৎসবের পরিচালক সাদাফ সায্ বলেন, বাংলাদেশের দুই হাজার বছরের সাহিত্য, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য বিশ্বের কাছে তুলে ধরতেই এই আয়োজন। বিশেষ করে পালা গান, জারি গান, বেহুলা লখিন্দরসহ সব ধরনের লোকসংগীত তুলে ধরা হয়।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকে বাংলা একাডেমি আয়োজিত বিভিন্ন সাংস্কৃতিক উৎসবের কথা উল্লেখ করেন তার আলোচনায়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ঢাকা লিট ফেস্টের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য যেমন বিশ্বদরবারে উপস্থাপিত হচ্ছে, তেমনি ঢাকা ট্রান্সলেশন সেন্টারের মাধ্যমে বাংলাদেশের সাহিত্য অনূদিত হচ্ছে। এমন উৎসব আয়োজনে বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। এ জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের বিশেষ পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে আয়োজিত তিন দিনের এ উৎসবে অংশ নেবেন দুই শতাধিক শিল্পী, সাহিত্যিক, লেখক, গবেষক, সাংবাদিক। ২০১৬ সালের ম্যান বুকার পুরস্কার বিজয়ী ও ২০১৪ সালে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন প্রাইজ ফর লিটারেচার ইভ উইল্ড জয়ী ডেবোরাহ স্মিথ, উত্তর কোরিয়ার লেখক হাইয়েনসিও লিসহ নেপাল, ভুটানসহ অনেক দেশের সাহিত্যিক আসছেন লিট ফেস্টের এবারের আসর মাতাতে।

এ বছর লিট ফেস্টে অংশ নিয়েছে সময় প্রকাশ, বুক ওয়ার্ম, বেঙ্গল পাবলিকেশন, ব্রিটিশ কাউন্সিলসহ আরও অনেক প্রতিষ্ঠান। তিন দিনের এই সাহিত্য উৎসব চলবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত।

 

শিল্পকলার উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে রাধারমণ সংগীত উৎসব : বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত চত্বরে শুরু হলো রাধারমণ সংগীত উৎসব। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টায় তিন দিনব্যাপী এ উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী রফিকুন্নবী। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। শিল্পকলা একাডেমি ও রাধারমণ সংস্কৃতিচর্চা কেন্দ্র যৌথভাবে এ আয়োজন করে।

তিন দিনব্যাপী এ রাধারমণ সংগীত উৎসবে ঢাকা, সুনামগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, নবীগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গলের শিল্পীদের থাকছে সংগীত পরিবেশনা। তিন দিনের এ উৎসবে ঢাকার ১৫ ও সিলেট বিভাগের ৩০ শিল্পী সংগীত পরিবেশন করবেন।

প্রতিদিন অনুষ্ঠান শুরু হবে বিকাল ৫টায়।

 

 

"