মালয়েশিয়ায় বৈধ হওয়ার শেষ সুযোগ রি-হায়ারিং প্রোগ্রাম চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

  মো. মাহফুজুর রহমান

১৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ই-কার্ডে (এনফোর্সমেন্ট কার্ড) নিবন্ধনের মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় কর্মরত অবৈধ বাংলাদেশিসহ অভিবাসীরা যারা বৈধ হতে পারেননি তাদের জন্য শেষ সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তাই বৈধ আউটসোর্সিং কোম্পানির সাহায্য নিয়ে দ্রুত নিবন্ধন করার আহ্বান জানিয়েছে কুয়ালালামপুরস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন। এ প্রক্রিয়া চলবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। হাইকমিশনার শহীদুল ইসলামের বরাত দিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী রাজা আমাদের সময়কে এ তথ্য জানান।

মালয়েশিয়া সরকারের ঘোষণা করা এ প্রোগ্রামে অংশ নেওয়ার নিয়মে বলা হয়েছেÑ তারাই রি-হায়ারিং প্রোগ্রামে অংশ নেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করবেন, যারা বৈধভাবে মালয়েশিয়ায় এসেছেন এবং পাসপোর্ট আছে কিন্তু ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে, কমপক্ষে ছয় মাস অবৈধ অবস্থায় কোনো প্রতিষ্ঠানে কর্মরত, কোনো অপরাধের রেকর্ড না থাকলে, বয়স ৪৫ বছরের কম হলে, পূর্বতন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ইমিগ্রেশনে কোনো অভিযোগ না থাকলে।

প্রোগ্রামটিতে অংশ নেওয়ার নিয়মাবলীÑ ১. রি-হায়ারিং প্রক্রিয়ায় বৈধতা পেতে কর্মীদের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি বা চিঠির মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। ২. ইমিগ্রেশন থেকে ভিসা স্টিকারপ্রাপ্তি সাপেক্ষ লেভি শোধ করতে হবে। ৩. রি-হায়ারিং কর্মসূচির আওতায় বৈধতার মেয়াদ হবে তিন থেকে পাঁচ বছর। তবে মালয়েশিয়া সরকার অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্য কোনো এজেন্ট বা দালালের মাধ্যমে রি-হায়ারিং না করতে অনুরোধ করেছে। ইতোমধ্যে যারা ই-কার্ড পেয়েছেন তাদের পাসপোর্ট না থাকলে বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে তা নিতে পারবেন। এ বিষয়ে হাইকমিশনার শহীদুল ইসলাম বলেনÑ প্রতিমাসের তৃতীয় সপ্তাহের শনি ও রবিবার জহুর বারু, পেনাং, মালাক্কা, ক্যামেরুন হাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন প্রদেশে দূতাবাসের মোবাইল টিম নতুন পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ ও বিতরণ করছে। সিরিয়াল অনুযায়ী ডিজিটাল পাসপোর্ট তৈরি এবং নবায়ন হচ্ছে। হাইকমিশনের আশপাশে দালালদের ঘেঁষতে দেওয়া হচ্ছে না।

এদিকে ৩০ জুন মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছে মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন পুলিশ। অভিযানে ৫৭ নিয়োগকর্তাসহ সাড়ে তিন হাজার অবৈধ বিদেশি শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় দেড় হাজারই বাংলাদেশি শ্রমিক। এ ছাড়াও ইমিগ্রেশনে দেখা করার জন্য ১৮০ নিয়োগকর্তাকে নোটিস পাঠানো হয়েছে। সব অবৈধ শ্রমিককে আটক না করা পর্যন্ত সাঁড়াশি অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন প্রধান মুস্তাফার আলী।

এ বিষয়ে মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান কামাল আমাদের সময়কে বলেন, সাম্প্রতিক ধরপাকড় অভিযানে সহস্রাধিক বাংলাদেশি আটক হয়েছেন। পাশাপাশি ঝুঁকিতে রয়েছেন আরও হাজার হাজার বাংলাদেশি। তবে দুই দেশের মধ্যে আলোচনার ভিত্তিতে সমস্যার একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানে আসা যেতে পারে। অধিক সেবা পেতে দূতাবাসের জনবল বাড়ানো উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে