পিরোজপুরে ২১ দিন পর কবর থেকে ছাত্রের লাশ উত্তোলন

প্রকাশ | ০৬ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০

পিরোজপুর ও ইন্দুরকানী প্রতিনিধি

খুলনা সিএমএম ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নির্দেশে পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলায় মৃত্যুর ২১ দিন পর কবর থেকে এক ছাত্রের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। পিরোজপুর জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব দাসের উপস্থিতিতে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ইন্দুরকানী উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রাম থেকে স্কুলছাত্র মেহেদী হাসানের (১৭) লাশ উত্তোলন করা হয়। মেহেদী হাসান ইন্দুরকানী উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর গ্রামের মো. রজিম হাওলাদারের ছেলে এবং খুলনা রূপসা বহুমুখী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল। মেহেদী হাসানের মা পাপড়ি বেগম জানান, মেহেদী হাসান দীর্ঘদিন ধরে খুলনার রূপশা এলাকায় বসবাস করত। কোরবানির ঈদের পরদিন মেহেদীর বন্ধু একই এলাকার আকাশ দাওয়াত খাওয়ার কথা বলে মেহেদীকে নিয়ে যায়। রাতে আকাশ জানায় মেহেদী সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। আহত অবস্থায় প্রথমে খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তার অবস্থা অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা গ্রিন লাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১০ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর মেহেদী হাসান মারা যায়। পাপড়ি বেগম আরও জানান, মৃত্যুর কিছুদিন পর তিনিসহ তার পরিবারে লোকজন জানতে পারে যে মেহেদী হাসান সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়নি, তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

তাই তিনি এ ব্যাপারে নিজে বাদী হয়ে খুলনা আদালতে গত ২১ সেপ্টেম্বর ১৩ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে খুলনা সিএমএম ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আমিনুল ইসলাম লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেন।

পিরোজপুর জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব দাস জানান, খুলনা সিএমএম ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারক আমিনুল ইসলামের নির্দেশ মোতাবেক লাশ কবর থেকে উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।