অবহেলিত জামিজুরী বধ্যভূমি

  নাসির উদ্দিন, চন্দনাইশ

১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌর এলাকার জামিজুরী গ্রামে পাক হানাদার বাহিনীর হাতে নির্মমভাবে নিহত ১৩ জনের স্মৃতি ধরে রাখতে নির্মিত বধ্যভূমিটি স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৬ বছর পরও অযতœ-অবহেলায় পড়ে আছে। মতার পালাবদল হলেও শহীদ পরিবারগুলোর খোঁজ রাখার প্রয়োজন মনে করেনি কোনো সরকার। ১৯৭১ সালের ২৮ এপ্রিল পাক হানাদার বাহিনী তৎকালীন পটিয়া থানার দোহাজারীর জামিজুরী গ্রামে লোমহর্ষক হত্যালীলা চালায়। এতে শহীদ হন ডা. বগলা প্রসাদ ভট্টাচার্য, মাস্টার প্রফুল্ল রঞ্জন ভট্টাচার্য, তারা চরণ ভট্টাচার্য, মিলন কান্তি, বিমল দাশ, বিশ্বেসর ভট্টাচার্য, করুণা চৌধুরী, অমর দাশ, হরি রঞ্জন মজুমদার, রেনু বালা ভট্টাচার্য, নগেন্দ্র রানি, মনিন্দ্র দাশ ও রমনী দাশ। পরে এলাকাবাসী ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা লাশগুলো একত্রিত করে একটি গর্তে সমাধিস্থ করে। স্বাধীনতার পর ১৩ জনের তাদের স্মৃতি ধরে রাখার প্রয়াসে স্থানীয় কজন প্রগতিশীল তরুণের অকান্ত পরিশ্রমে সমাধি স্থানে গড়ে তোলা হয় বধ্যভূমি। পরিবারগুলো আজও পায়নি শহীদ পরিবারের মর্যাদা। পায়নি সরকারি বা বেসরকারি কোনো সাহায্য বা অনুদান।

২০০৭ সালের ২৬ মার্চ চন্দনাইশ উপজেলার তৎকালীন নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদ রহিম এ বধ্যভূমিটির ফলক উন্মোচন করেন। এর পর আর এটি সংস্কারে সরকারিভাবে পদপে নেওয়া হয়নি। গত বছর উপজেলা প্রশাসনের প থেকে মোমবাতি প্রজ্বালনের মাধ্যমে দিবসটি পালিত হয়েছিল মাত্র।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে