টাঙ্গাইলে প্রবেশ করতেই আবর্জনার স্তূপ, সাধারণের ভোগান্তি

  কাজল আর্য, টাঙ্গাইল

১৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

টাঙ্গাইল শহরের প্রবেশমুখ রাবনা বাইপাস এলাকায় শহরের সব ময়লা-আবর্জনা ফেলে স্তূপ বানানো হয়েছে। এতে একদিকে স্থানীয় বাসিন্দা ও যাতায়াতকারীরা দুর্গন্ধে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। অন্যদিকে পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে।

সরেজমিন দেখা যায়, মহাসড়ক থেকে রাবনা বাইপাস মোড় পার হয়ে একটু সামনে এগোলেই দুর্গন্ধের মধ্যে পড়তে হয় সবাইকে। প্রধান সড়কের পূর্ব পাশেই পচা ময়লা-আবর্জনার বিশাল স্তূপ। শহরের প্রায় সব বর্জ্য ফেলা হয় এই খোলা জায়গায়। এতে দর্গন্ধ ছড়িয়ে মারাত্মকভাবে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। এ ছাড়া বর্জ্য পোড়ানোর বিষাক্ত ধোঁয়ায়ও পরিবেশদূষণসহ মানবদেহের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে।

উত্তর টাঙ্গাইলের ছয়টি উপজেলার মানুষের শহরে ঢোকার পথ এটিই। প্রতিদিন অফিস, আদালত, হাসপাতালসহ বিবিধ কারণে অগণিত মানুষ এই পরিবেশে বাধ্য হয়েই চলাচল করে।

ভুক্তভোগীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানায়, টাঙ্গাইলের মেয়র সাহেব কিংবা পৌর কর্তৃপক্ষের নাকে কি গন্ধ লাগে না! তিনি মানুষের কষ্ট বোঝেন না কেন? এমন গুরুত্বপূর্ণ শহরের প্রবেশমুখে ময়লা-আবর্জনার ভাগাড় কেউ মেনে নিতে পারছে না।

বৃষ্টি হলেই ময়লা-আবর্জনাগুলো একেবারে রাস্তার ওপর চলে আসে। তখন যানবাহন ও পথচারীদের ময়লা-আবর্জনার ওপর দিয়েই চলতে হয়। এই দুর্গন্ধময় জায়গাটি অতিক্রমের সময় মকবুল হোসেন নামে এক পথচারী বলেন, এ করুণ অবস্থার কবে শেষ হবে?

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে চলাচলকারী ঝটিকা পরিবহনের হায়দার আলী বলেন, ভাই ওই স্থানে ভয়ানক দুর্গন্ধ। শহরে ঢোকার সময় এবং বের হওয়ার সময় খুবই কষ্ট হয়।

টাঙ্গাইলের সাবেক সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ ইবনে সাঈদ বলেন, পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি ওই পচা ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ ও বর্জ্য পোড়ানোর বিষাক্ত ধোঁয়ায় মানবদেহের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। এ ছাড়া প্রাণিকুলের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অক্সিজেনের অভাব দেখা দিতে পারে। দ্রুত এর একটি ব্যবস্থা করা দরকার।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক খান মোহাম্মদ নূরুল আমীন বলেন, বিষয়টির দায়িত্ব পৌরসভার।

বাস টার্মিনাল ও ময়লা ব্যবস্থাপনার জন্য ৬ শতাংশ জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ও বিশ^ব্যাংকের মধ্যে কথা চলছে। আশা করি, দ্রুতই সমস্যার সমাধান হবে।

মেয়র জামিলুর রহমান মিরন ‘আমাদের সময়’কে বলেন, জানি দুর্গন্ধে মানুষের কষ্ট হচ্ছে। কষ্ট আমাদেরও হচ্ছে। আপাতত এখানেই ফেলা হচ্ছে। বাস টার্মিনাল ও ময়লা-আবর্জনা ব্যবস্থাপনার জন্য যেটুকু জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, তা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে