প্রেস বক্স থেকে

 

০৭ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মুশফিকদের ড্রেসিংরুমে খাবার বিভ্রাট

ব্লুমফন্টেইন টেস্ট শুরুর আগে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার জানিয়েছিলেন, দল যে হোটেলটিতে (ম্যারিয়ট) সেখানে ইন্টারনেট কাজ করছিল না। ম্যাচ শুরুর পরও অব্যবস্থাপনা দেখা গেছে ম্যাঙ্গাউং ওভাল স্টেডিয়ামে। নিরাপত্তাব্যবস্থা কঠোর থাকায় খেলা চলাকালে বাংলাদেশের ড্রেসিংরুমে খাবার আসতে দেরি হয়। এ জন্য ১০ মিনিট বন্ধ ছিল। শুধু খেলোয়াড়দের ড্রেসিংরুমেই নয়, টিভি ধারাভাষ্যকার, সাবেক ক্রিকেটার ও সাংবাদিকদের ডাইনিং রুমেও খাবার দেরিতে এসেছে। ক্যাটারিংয়ের দায়িত্বে থাকা আহমেদ আদম দাবি করেন, খাবার ঠিক সময়েই এসেছিল। কিন্তু স্টেডিয়ামের ভেতরে খাবার প্রবেশে বিলম্ব হয়েছে নিরাপত্তা কঠোর থাকায়। স্টেডিয়ামে খাবার প্রবেশের অনুমতি পেতে দেরি হয়েছিল। জানা গেল, ভুল বোঝাবুঝির কারণে বাংলাদেশের ড্রেসিংরুমে হালাল খাবার আসতে দেরি হয়। আয়োজকরা স্টেডিয়ামে খাবার চেয়েছিল স্থানীয় সময় ১১টায়। কিন্তু ভুলে অর্ডার কপির কাগজে সময় লেখা ছিল ১২টা ৩০ মিনিট। দীর্ঘ প্রায় ৯ বছর পর ম্যাঙ্গাউং ওভালে টেস্ট ক্রিকেটের আয়োজন করা হয়েছে। এর আগে ২০০৮ সালের নভেম্বরেই বাংলাদেশ এই ভেন্যুতে শেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল।

গ্যালারিতে কচিকাঁচার মেলা!

ম্যাঙ্গাউং ওভালের একপাশে গ্যালারি। দুই পাশে ঘাসের অন্যরকম বড় গ্যালারি। এ গ্যালারির অধিকাংশ দর্শক হলেন ব্লুমফন্টেইনের ইউনিটি প্রাইমারি স্কুলের ছোট ছোট শিশু। নিজেদের দেশের জাতীয় পতাকা হাতে এইডেন এলগার-মারক্রামদের সমর্থন জুগিয়ে যায় তারা। কথা হলো ইউনিটি প্রাইমারি স্কুলের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক শিক্ষক উইসলির সঙ্গে। তিনি জানান, তার স্কুল থেকে ২৫০ ছাত্রছাত্রী খেলা দেখতে এসেছে মাঠে। স্টেডিয়ামের গ্যালারি তাদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। ছোট ছোট শিশুও যেন অন্যরকম এক আনন্দ-উৎসবে মেতে ওঠে। প্রচ- রোদে পুড়ে স্বাগতিক দর্শকের সঙ্গে বাংলাদেশের দর্শকরাও স্টেডিয়ামে আসেন খেলা উপভোগ করতে।

বাংলাদেশ দলে চার পরিবর্তন

ম্যাচের আগের দিনই অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, দ্বিতীয় টেস্টের একাদশে পরিবর্তন আসছে। বাংলাদেশের একাদশে চারটি পরিবর্তন আনা হয়। টেস্ট অভিষেকের পর প্রথমবারের মতো দল থেকে বাদ পড়েন তরুণ অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। একাদশ থেকে বাদ পড়েন তাসকিন, শফিউল। পেস আক্রমণে রুবেল হোসেন ও শুভাশীষ রায়কে নেওয়া হয়। একাদশে ফেরেন বিশেষজ্ঞ স্পিনার তাইজুল ইসলাম। গত জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সফরে একটি টেস্ট খেলার পর আবারও একাদশে ফিরে নিজেকের প্রমাণের সুযোগ রুবেলের। অন্যদিকে মরনে মরকেল ইনজুরিতে পড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার একাদশে জায়গা পান ওয়েন পারনেল। ডেল স্টেইন, মরকেল, ফিল্যান্ডার ও ক্রিস মরিস ইনজুরির কারণে না থাকায় দ্বিতীয় সারির পেস আক্রমণ নিয়ে মাঠে নেমেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদের পেস আক্রমণে নেতৃত্ব দিচ্ছেন কাগিসো রাবাদা।

এলগারের রেকর্ড

চলতি বছর টেস্ট ক্রিকেটে এক হাজার রান সংগ্রহের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন ডিন এলগার। দিনের চতুর্থ ওভারে শুভাশীষের বলে টানা দুটি চার মেরে এ রেকর্ড গড়েন স্বাগতিক এই ওপেনার। চলতি বছর ১১তম টেস্ট ম্যাচ খেলছেন তিনি। এ মাইলফলকের দিন চলতি বছর পঞ্চম সেঞ্চুরিও তুলে নেন। পচেফস্ট্রুম টেস্টে মাত্র এক রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি পাননি। এ বছর টেস্টে আটশর বেশি করেছেন চেতেশ্বর পূজারা ও হাশিম আমলা। ৪১টি টেস্ট ম্যাচে এলগারের সংগ্রহ ১০টি সেঞ্চুরি। গতকাল এইডেন মারক্রামের সঙ্গে ২০০ রানের জুটির রেকর্ডও গড়েছেন এলগার।

ষএম. এম মাসুক

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে