ম্যারাডোনার স্মৃতি মনে করালেন জাদুকর মেসি

  ক্রীড়া ডেস্ক

১৩ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০১৭, ০২:২০ | প্রিন্ট সংস্করণ

১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জয় করেছিল। ওই স্মৃতি আজও মধুর। তবে সেবারই আর্জেন্টিনা বাছাইপর্বে খড়কুটো পুড়িয়ে মূল পর্বে যায়। এর পর বাকিটা তো ইতিহাস। দিয়েগো ম্যারাডোনার জাদুকরী ফুটবলে সেবার বিশ্বকাপ পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এবারও লিওনেল মেসির জাদুতে দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলেছে দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ২০০২ সালে ব্রাজিল বাছাইপর্বে ভালো করেনি। কিন্তু মূল পর্বে ভালো করে তারা। জার্মানিকে হারিয়ে বিশ্বকাপ জয় করে ব্রাজিল। ইতিহাস তো বারবার ফিরে আসে। এবার আর্জেন্টিনার দায়িত্ব মেসির কাঁধে। ফুটবলবিশ্বের এ জাদুকর সম্ভাব্য সবই জয় করেছেন। তবে একটি বিশ্বকাপ তিনি পাননি, যেটার জন্য এত আক্ষেপ। এবার কি মেসি পারবেন?

১৯৭৮ সালে প্রথম বিশ্বকাপ জয় করে আর্জেন্টিনা। সে সময় তাদের দেশের পরিস্থিতি ভালো ছিল না। ওই সময় এমন বিশ্বকাপ জয়ে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে দেশটি। এর পর ম্যারাডোনা ৮ বছর পর আবারও বিশ্বজয় করেন। তবে ৮৬ সালে পরিস্থিতি আর্জেন্টিনার পক্ষে ছিল না। বাছাইয়ের শেষ ম্যাচে পেরুর সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে বিশ্বকাপ নিশ্চিত করে। এবারও বাছাইপর্বের শেষ ম্যাচে আর্জেন্টিনা রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট হাতে পেয়েছে। মেসির জাদুতে আর্জেন্টিনা দুটি কোপা আমেরিকা ও একটি বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছে। এবারও পারবে বলে অনেকে ধারণা করছেন। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে আর্জেন্টিনা দারুণ খেলেছিল। তবে শেষে একটি গোল হজম করে বিশ্বকাপ হাতছাড়া হয়ে যায়।

আর্জেন্টিনার দায়িত্ব নিয়ে বাউজা শান্তিতে ছিলেন না। তিনি চাকরি হারান। এর পর আসেন সাম্পাওলি। তিনি আসার পরও পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। কিন্তু মেসি সব নিজের অধিকারে নিয়ে গেলেন। শেষ বাছাই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে ফুটবলের এ যুবরাজ বিশ্বকাপে খেলার টিকিট হাতে পেলেন। ইকুয়েডরের বাছাইয়ের এ ম্যাচটি অগ্নিপরীক্ষা ছিল। আর অমন ম্যাচে দুরন্ত গতিতে খেলে মেসি সব নিজের অধিকারে নিয়ে যান। এবার সময় এসেছে। একটি বিশ্বকাপ জয় করে মেসি সব সমালোচনা শেষ করে দিতে পারেন। সামর্থ্য মেসির রয়েছে। এখন শুধু অপেক্ষা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে