advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
advertisement

খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে নেতৃত্ব দেন, না হয় আমাদেরটা গ্রহণ করুণ : অলী

১৫ মে ২০১৯ ২১:৩৭
আপডেট: ১৫ মে ২০১৯ ২১:৩৭
পুরোনো ছবি

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে মন্তব্য করেছেন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ। তিনি বলেছেন, ‘এখন আর বসে থাকার সময় নেই, সামনে এগুতে হবে।’

তিনি বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, হয় আপনারা নেতৃত্ব দেন, নাহলে আমাদের নেতৃত্ব গ্রহণ করুন।’

আজ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এলডিপি আয়োজিত ‘মধ্যবর্তী নির্বাচন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তি’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে অলি আহমদ এসব কথা বলেন।

এলডিপির সভাপতি বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে জেলে থেকে আমাদেরকে নির্দেশ দেওয়া সম্ভব নয়। তারেক রহমানের পক্ষে লন্ডন থেকে সক্রিয়ভাবে মাঠে থাকা সম্ভব নয়। সুতরাং দেশের এই ক্রান্তিকালে আমাদেরকেই সেই দায়িত্ব নিতে হবে এবং আমি সেই দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত।’

এলডিপি চেয়ারম্যান কর্নেল (অব) অলি আহমদ বলেন, ‘বিরোধীদলের অনেকেই দুই কোটি টাকা করে নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে বিএনপি এবং ২০ দলীয় ঐক্যজোটকে শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে রাখার দায়িত্ব নিয়েছিল। যার জন্য অনেকেই বলেছে নির্বাচন খুব ভালো হয়েছে।’

বিএনপি জোটকে শক্তিশালী করতে নিজের প্রস্তুতির কথা জানিয়ে অলি আহমেদ বলেন, ‘বিএনপি নেতাদের প্রতি অনুরোধ, সবাই এক জায়গায় একত্রিত হোন। আমাদের হাতকে শক্তিশালী করেন। নাহলে আপনাদের হাতকে শক্তিশালী করার জন্য আমাদেরকে বলেন, আমরা সেটা করতে রাজি আছি। বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। গণতন্ত্র পুনরায় প্রতিষ্ঠা করতে হবে। জনগণের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। আমি মুক্তিযুদ্ধে জীবন দিতে পারি নাই, এবার স্বৈরশাসকের হাতে জীবন দিতে প্রস্তুত আছি। বিএনপির যারা আছেন আপনারা নিজেদের মধ্যে কথা বলেন। কারা কারা আসবেন আমাদের সাথে আসেন।’

অলি আহমদ আরও বলেন, ‘আপনারা নতুনভাবে এটার নামকরণ করেন। আমার নেতৃত্বে আসতে হবে এটাও না। আপনাদের মধ্যে যদি কেউ নেতৃত্ব দিতে পারেন তার নেতৃত্বেও আমরা কাজ করতে প্রস্তুত। বিএনপি সংসদে শপথ গিয়ে সরকারের বৈধতা দিয়েছে মন্তব্য করে এলডিপি সভাপতি বলেন, বিএনপি এই সরকারকে বৈধতা দিয়েছে, এটাই হলো বাস্তবতা।’

এ সময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘২০ দলের অন্যতম শরিক দল হচ্ছে জামায়াত যদি সত্যিকার অর্থে খালেদা জিয়ার মুক্তি চায় তাহলে তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতা করার কারণে তাদের পিতারা যে ভুল করেছে সেজন্য জনসম্মুখে ক্ষমা চাইতে হবে। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আন্দোলনের মূল ভূমিকা বিএনপিকেই রাখতে হবে।’

খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রেখে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ভুল করছেন মন্তব্য করেন জাফরুল্লাহ। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় খালেদা জিয়া তিন মাস আত্মগোপনে ছিলেন। তারপর তিনি যখন গ্রেপ্তার হন তখন সেনানিবাসে আবদ্ধ ছিলেন। দেরি না করে খালেদা জিয়ার জামিনের ব্যবস্থা করে দিন।’

অলি আহমদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ কল্যাণপার্টির চেয়ারম্যান মেজর. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব শাহাদত হোসেন সেলিম, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ প্রমুখ।