advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
advertisement

অভিযুক্তদের বহিষ্কারে ২৪ ঘণ্টা সময় নিল ছাত্রলীগ

ঢাবি প্রতিবেদক
১৬ মে ২০১৯ ০৯:৪৩ | আপডেট: ১৬ মে ২০১৯ ১২:২২

ছাত্রলীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ ক‌মি‌টি‌তে অভিযুক্তদের বিষয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলী‌গ। গতকাল বুধবার মধ্যরা‌তে আওয়ামী লীগ সভা‌পতির রাজনৈতিক কার্যাল‌য়ে এক জরুরি সংবাদ স‌ম্মেল‌নে দলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী গোলাম রাব্বানী এ কথা জানান।

গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘আগামী ২৪ ঘণ্টার ম‌ধ্যে অভিযুক্তদের তথ্য-প্রমাণ সা‌পে‌ক্ষে, অভিযোগ প্রমা‌ণিত হলে তাদের ব‌হিষ্কারের মাধ্যমে পদশূন্য ঘোষণা ক‌রে বঞ্চিত‌দের স্থান ক‌রে দেওয়া হবে।’

তিনি আরও ব‌লেন, ‘গণমাধ্যম ও সামা‌জিক যোগা‌যোগমাধ্যমে মু‌ক্তিয‌ুদ্ধের চেতনা বিরোধী, বিবাহিত, অছাত্র, মামলার আসামিসহ বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত ১৭ জ‌নের নাম আমরা প্রাথমিকভা‌বে পে‌য়ে‌ছি। প্রাথমিক ত‌থ্যের ভিত্তিতে ১৭ জনের বিরুদ্ধে অভি‌যোগের তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেলে তাদের ব‌হিষ্কারের মাধ্যমে পদশূন্য ঘোষণা ক‌রে বঞ্চিত‌দের স্থান ক‌রে দেব।’

এ সময় ১৭ জ‌নের মধ্যে ১৫ জনের নাম সাংবাদিকদের কাছে তু‌লে ধরেন গোলাম রাব্বানী। তারা হলেন- তানজীল ভূঁইয়া তানভীর (বয়স), আরেফিন সিদ্দিকি সুজন (মাদক সংশ্লিষ্টতা), সুরঞ্জন ঘোষ (বয়স), আতিকুর রহমান খান (মাদক সংশ্লিষ্টতা), বরকত হোসেন হাওলাদার (শিক্ষকের সঙ্গে অসদাচরণের অভিযোগ), শাহরিয়ার হোসেন বিদ্যুৎ (সংগঠনের নীতি বিরোধী কর্মকাণ্ড), মাহমুদুল হাসান তুষার (মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে চেতনা ধারণের অভিযোগ), আমিনুল ইসলাম বুলবুল (মামলা রয়েছে), আহসান হাবীব (চাকরি), সাদিক খান (বিয়ে), তৌফিক হাসান সাগর (পরিবারের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ), সোহানী হাসান তিথি (বিয়ে), রুশি চৌধুরী (বিয়ে), মুনমুন নাহার বৈশাখী (বিয়ে), আফরিন লাবণী (বিয়ে)।

‌এ সময় বিশৃঙ্খলাকারী‌দের উদ্দেশে কেন্দ্রীয় ছাত্রলী‌গের সাধারণ সম্পাদক ব‌লেন, ‘আমরা স্পষ্ট বলতে চাই, সারা দে‌শে সবার প্রত্যাশা পূরণ নাও হ‌তে পারে, প্রতিবা‌দের ভাষা হ‌তে হ‌বে গণতান্ত্রিক। যারা সংগঠ‌নে বিশৃঙ্খলা ক‌রে‌ছে, তাদের ছাড় দেওয়া হ‌বে না। তা‌দেরও বহিষ্কার করা হ‌বে।’

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ব‌লেন, ‘যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে, তাদের যেমন বহিষ্কার করা হ‌বে, যারা বিশৃঙ্খলা করেছে, তাদের‌ও বহিষ্কার করা হ‌বে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ উত্তর ও দক্ষিণ শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।