advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

শিরোপার আরও কাছে খুলনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:৫৬
advertisement

অসাধারণ ইনিংস খেলেছেন নুরুল হাসান সোহান। খুলনার নেতৃত্ব দিচ্ছেন তিনি। প্রথম ইনিংসে খেলেছেন অপরাজিত ১৫০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট ক্যারিয়ারে উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের এটি অষ্টম সেঞ্চুরি। খুলনা ৩৭৯ রানে অলআউট হয়েছে। ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগের ষষ্ঠ রাউন্ডের খেলার তৃতীয় দিনশেষের পর্দা নামার সময় ঢাকা ১০২ রান তুলতে ৫ উইকেট হারিয়েছে। লিড ২ রানে। খেলার যা গতিবিধি, তাতে জাতীয় লিগে আবারও শিরোপার সুবাস পাচ্ছে খুলনা।

খুলনায় গতকাল তৃতীয় দিনে খুলনা ব্যাটিংয়ে নেমেছিল ৩ উইকেটে ২৫২ রানে। তুষার ইমরান (৭৫*) ও নুরুল হাসান সোহান (৫৬*) ব্যাটিংয়ে নামেন। তুষার তার ইনিংসকে বেশিদূর টানতে পারেননি। তবে সোহান ছিলেন আপন আলোয় উজ্জ্বল। ১৮১ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন। এর পর ব্যাটে ঝড় তোলেন। শেষ পর্যন্ত ২২৭ বলে অপরাজিত ১৫০ রান করেন। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৩টি চার ও ৭টি ছক্কায়। শুভাগত হোম সর্বোচ্চ ৫ উইকেট পান।

ঢাকা দ্বিতীয় ইনিংসে টালমাটাল। জিয়াউর রহমানের পেসে দিশেহারা দলটির ব্যাটসম্যানরা। প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যান রান পাননি। উত্তম ৪, মাজিদ ৫ ও শফিউল হায়াত ০ রানে সাজঘরে ফেরেন। দলীয় ১০ রানে ৪ উইকেট হারায় তারা। সেখান থেকে দলকে টেনে তোলার চেষ্টা চালান রকিবুল হাসান ও শুভাগত হোম। পঞ্চম উইকেটে এ জুটি স্কোরকার্ডে জমা করেন ৭৬ রান। ৪২ রানে আউট হয়েছেন শুভাগত। রকিবুল ৩৯ রানে অপরাজিত আছেন। জিয়াউর ২৩ রানে ৩ উইকেট পান।

রাজশাহীতে ২৪৮ রানে লিড নিয়েছে রংপুর। ২২৪/৫ রানে ব্যাটিংয়ে নামা রাজশাহী প্রথম ইনিংসে তুলতে পেরেছে ২৫৪। সাব্বির ২২ রানে আউট হয়েছেন। দেলওয়ার অপরাজিত ১৯ রান করেন। আগের দিন ৩ উইকেট পেয়েছিলেন আরিফুল হক। এদিনও বোলিংয়ে উজ্জ্বল ছিলেন। রংপুরের পেসার ৪১ রানে ৬ উইকেট শিকার করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা রংপুরের শুরুটা ভালো হয়নি। ১২১ রান তুলতেই ৫ উইকেট হারায়। তবে জাহিদ জাবেদ (৩৩), তানভীর হায়দার (৭২*), আরিফুল হকের (৪৮) ব্যাট রানের চাকা সচল রেখেছে। তৃতীয় দিনশেষে তাদের সংগ্রহ ২২৮/৬। রিসাদ ১৮ রানে অপরাজিত আছেন। দেলওয়ার ৪ উইকেট শিকার করেছেন।

বরিশালে ঢাকা মেট্রোপলিসের হয়ে জোড়া সেঞ্চুরি করেছেন শামসুর রহমান (১০৩) ও মার্শাল আইয়ুব (১০৯)। ৮ রানের জন্য সেঞ্চুরি-বঞ্চিত হয়েছেন আল-আমিন (৯২)। জাবেদ ৬২* ও আরাফাত সানী ৩১ রান করেছেন। ব্যাটসম্যানদের দৃঢ়তায় রানের পাহাড় গড়েছে ঢাকা। প্রথম ইনিংসে তাদের সংগ্রহ ৪৬৬। সোহাগ গাজী ৩ উইকেট পান। দ্বিতীয় ইনিংসে সুবিধা করতে পারেনি বরিশাল। ৩০ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারিয়েছে। ফজলে ১৯ ও নুরুজ্জামান ১ রানে অপরাজিত আছেন। সানী ২ উইকেট পান। ২২ রানে পিছিয়ে বরিশাল।

advertisement