advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

নিকলীতে যুবলীগের দুগ্রুপের গোলাগুলি গুলিবিদ্ধ ৩ শিশু

নিকলী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
১২ মে ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১১ মে ২০২১ ২২:৪৭
advertisement

দুই নেতার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নিকলী উপজেলায় যুবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছেন। এতে তিন শিশুসহ ৪ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গতকাল বেলা ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলা সদরের খালিশাহাটি গ্রামের যুবলীগ নেতা নাজিউর রহমান সোহেল ও পার্শ্ববর্তী জাফরাবাদ গ্রামের যুবলীগ নেতা মো. সাদ্দাম হোসেন গ্রুপের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধ ৪ জনকে নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে একজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আহতরা হলেন- নিশামনি (৫), নূরমনি (৮), মো. রিয়ান (৮) ও আকাশ মিয়া (১৮)। তাদের শরীরের বিভিন্ন অংশে গুলিবিদ্ধ হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নাজিউর রহমান সোহেল কয়েকদিন ধরে সোয়াজনী নদীর পশ্চিমাংশে পুরাতন চর (ধানি জমিতে) খনন করে বিশাল দীঘির ন্যায় ফিশারি তৈরি করছিলেন। এতে বাধা দেন যুবলীগ নেতা ও নদীর ইজারাদার মো. সাদ্দাম হোসেন। এ নিয়ে গতকাল বাগবিত-ার একপর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। এ সময় নাজিউর রহমান সোহেলের লোকজন জাফরাবাদ গ্রামে প্রবেশ করে মো. সাদ্দাম হোসেনের লোকজনকে লক্ষ গুলিবর্ষণ করে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শী মো. হারুন অর রশিদ ও মো. নবী হোসেনসহ কয়েকজন। খবর পেয়ে নিকলী থানাপুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে পুলিশের নজরদারি রয়েছে। তবে কেউ আটক বা গ্রেপ্তার হয়নি।

নিকলী থানা অফিসার ইনচার্জ মো. শামসুল আলম সিদ্দিকী জানান, সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধদের নিকলী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে তিনি দেখে এসেছেন।

এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থ্য নেওয়া হবে।

নবনিযুক্ত নিকলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসসাদিক জামান জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নদীর চর সরকারি সম্পত্তি। এতে ভূমি ও পরিবেশ আইন অমান্য করে কোনো রকম শ্রেণি পরিবর্তন করা যাবে না। নদীর বুকে ফিশারি খনন কাজে তিনি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন বলে জানান।

advertisement