advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

কবি-পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত আর নেই

বিনোদন সময় ডেস্ক
১১ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুন ২০২১ ২৩:০৮
advertisement

প্রয়াত হলেন কবি-পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। অবসান হলো বাংলা চলচ্চিত্র ও সাহিত্য জগতে এক সোনালি অধ্যায়ের। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে দক্ষিণ কলকাতার নিজ বাসায় ঘুমের মধ্যে মৃত্যু হয় তার। অনেকদিন ধরেই তিনি কিডনি রোগে ভুগছিলেন। সঙ্গে ছিল বার্ধক্যজনিত সমস্যা; চলছিল ডায়ালাইসিস। তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।

পরিবারিক সূত্রের খবর, গত বুধবারও বুদ্ধদেবের ডায়ালাইসিস হয়েছিল। গতকাল আরও এক দফায়

ডায়ালাইসিস হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সকালে স্ত্রীর ডাকে আর সাড়া দেননি তিনি। বুদ্ধদেবের প্রয়াণে শোকের ছায়া নেমেছে বাংলা চলচ্চিত্রের আকাশে। পরিচালক তরুণ মজুমদার বলেন, ‘খুবই বড় ক্ষতি। আমি হতবাক।’ পরিচালক গৌতম ঘোষ বলেন, ‘এই ভয়ঙ্কর সময়ে এমন খবর আরও মর্মান্তিক। বুদ্ধদেবের শরীর খারাপ ছিল। তবে কবিতা লিখছিলেন। ফোনে কথা বলছিলেন। একসঙ্গে স্বপ্ন দেখছিলাম। তার চলচ্চিত্র যাতে সংরক্ষিত হয়, সেই আর্জি জানাব।’

১৯৬৮ সালে ১০ মিনিটের একটি তথ্যচিত্র তৈরির মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে হাতেখড়ি বুদ্ধদেবের। এরপর ‘দূরত্ব’, ‘নিম অন্নপূর্ণা’, ‘গৃহযুদ্ধ’, ‘মন্দ মেয়ের উপাখ্যান’, ‘স্বপ্নের দিন’, ‘উড়োজাহাজ’ ইত্যাদি সিনেমা নির্মাণ করেছেন। তার পরিচালিত ‘বাঘ বাহাদুর’, ‘চরাচর’, ‘লাল দরজা’, ‘মন্দ মেয়ের উপাখ্যান’, ‘কালপুরুষ’ ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে। পরিচালক হিসেবেও তিনি দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার হাতে তুলেছেন। এ ছাড়া তার সিনেমা ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব, বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবেও প্রশংসা পেয়েছে। চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করলেও তার চলাচল ছিল সাহিত্য জগতেও। কবি বুদ্ধদেবের কলমে উঠে এসেছে একাধিক কবিতা, যা নিয়ে আজও চর্চা হয়। তার কাব্যগ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘রোবটের গান’, ‘ছাতা কাহিনি’, ‘গভীর আড়ালে’ ইত্যাদি।

১৯৪৪ সালে ১১ ফেব্রুয়ারি পুরুলিয়ার আনাড়ায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। তার বাবা রেলে চাকরি করতেন। ১২ বছরে হাওড়ায় স্কুল জীবন শুরু করেন। তারপর অর্থনীতি নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন স্কটিশ চার্চ কলেজ এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। অর্থনীতির অধ্যাপক হিসেবেই কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। পড়াশোনা ও সাহিত্য জগৎ থেকে পরিচালক হয়ে ওঠার পেছনে বড় ভূমিকা পালন করেছে কলকাতা ফিল্ম সোসাইটি। চার্লি চ্যাপলিন, ইঙ্গমার বার্গম্যান, আকিরা কুরোসাওয়ার সঙ্গে পরিচয় ঘটে সেখানেই।

advertisement