advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ধসে যাওয়া বাঁধে ঝুঁকিতে সেতু

গোপাল চন্দ্র রায় সৈয়দপুর (নীলফামারী)
১১ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুন ২০২১ ২৩:৩৯
advertisement

কিশোরগঞ্জের চাড়ালকাটা নদীতে নির্মিত বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজুল ইসলাম সেতুর সংযোগ সড়কের বামতীর ধসে গিয়ে ভয়াবহ ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘদিনেও মেরামত না করায় সেতুটি ঝুঁকিতে রয়েছে। এ অবস্থায় যে কোনো সময় সেতুটি নদীতে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নিতাই মুশরুত পানিয়ালপুকুর বেলতলীর ঘাটে চাড়ালকাটা নদীতে ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৯ কোটি ১৩ লাখ ৫৩ হাজার ১৪০ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয় সেতুটি। ১৪০ মিটার দৈর্ঘ্যরে এ সেতুর সংযোগ সড়কে বামতীরের বাঁধ গত বছরের প্রবল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর পর এক বছরেও সেটি মেরামতের উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিন দেখা গেছে, সেতুর দক্ষিণ-পশ্চিম বামতীরে পিলারের গোড়া থেকে সংযোগ সড়কের বাঁধরক্ষা ব্লক ও মাটি নদীতে ধসে গিয়ে গভীর খাদের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় চলাচল করছে ভারী যানবাহন।

এ প্রসঙ্গে নিতাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ফারুকুজ্জামান ফারুক বলেন, সৈয়দপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধীন গত বছর চাড়ালকাটা নদীটি পুনর্খনন করা হয়। ওই সময় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অপরিকল্পিতভাবে নদী খনন করায় সরাসরি নদীর ঘূর্ণায়নমান স্রােতে সেতুর মূল ফটকে আঘাত হানে। এতে সেতুসহ সংযোগ সড়কের প্রায় ৩০ মিটার বাঁধ বিলীন হয়। তিনি বলেন, অচিরেই এ ব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে যে কোনো সময় সেতুটি নদীতে ভেঙে পড়বে। আর এমন দুর্ঘটনা ঘটলে সরকারের কোটি কোটি টাকা গচ্চা যাবে। একই সঙ্গে উপজেলার সঙ্গে নিতাই ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। নীলফামারী এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী সুজন কুমার কর বলেন, বিষয়টি অবগত হয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

advertisement