advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

আরও ৫-৬টি অ্যাকাডেমি করার প্রতিশ্রুতি দিলেন কাজী সালাহউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৩৬ | আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৫৩
বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। পুরোনো ছবি
advertisement

ফুটবলে উন্নতি করতে বয়সভিত্তিক খেলোয়াড় তৈরির বিকল্প নেই। নতুন খেলোয়াড় তৈরি না হলে দলে প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হয় না। তাই ফুটবলে উন্নতি করতে হলে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা করতে হবে ফেডারেশনকে।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) কয়েকবার অ্যাকাডেমি তৈরি করলেও তা খুব বেশি দীর্ঘায়িত হয়নি। নানা কারণে থেমে গেছে অ্যাকাডেমির কার্যক্রম। এবার অবশ্য বড় আশা দেখাচ্ছে কাজী সালাহউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন কার্যনির্বাহী কমিটি।

দুই দফায় ব্যর্থ হলেও এবার নামে পরিবর্তন এনে লম্বা সময়ের জন্য ‘এলিট একাডেমি’ তৈরি করেছে বাফুফে। দুই মাস ধরে চলছে এর কার্যক্রম। এবার যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে। বাফুফের বিশ্বাস- আগামী দশ বছর এই অ্যাকাডেমির অধীনে ফুটবলার তৈরির কাজ চলমান থাকবে। তবে কাজী সালাহউদ্দিন কথা দিয়েছেন, আগামী দেড় থেকে দুই বছরের মধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে আরও পাঁচ থেকে ছয়টি অ্যাকাডেমি করবে সংস্থাটি।

এ বিষয়ে কাজী সালাহউদ্দিন বলেন, ‘অ্যাকাডেমিতে সমস্যা আসবে-যাবে। এসব সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা আছি, ক্রীড়া মন্ত্রণালয় আছে। কিন্তু খেলাটা খেলোয়াড়দেরকেই খেলতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘এক অ্যাকাডেমি দিয়ে কোনো এক দেশ হয় না। গতবছর একসঙ্গে ৩০০ একাডেমি খুলেছে চায়না। আমাদের কাছে শক্তি নাই। কিন্তু আমি ওয়াদা করছি আগামী দেড়-দুই বছরের মধ্যে আরও পাঁচ-ছয়টা একাডেমির কাজ শুরু হয়ে যাবে। ’

দেশে প্রথমবার বয়সভিত্তিক খেলোয়াড় তৈরিতে বিদেশি কোচসহ নানা সুবিধার ব্যবস্থার কথা জানিয়ে তিনি বলেন ‘এটাই দেশের একমাত্র অ্যাকাডেমি যেখানে কোচ বিদেশি। খেলোয়াড়ের বিদেশে যাবে। তাদের মানসিকতা বড় হবে। আগে তো অনেক কিছু হয়েছে আবার হয় নাই। পঞ্চাশ বছরে তো প্রথম করেছি।’

advertisement