advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

১৯ মাস পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি পদবঞ্চিতদের ক্ষোভ

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১:৫৯ পিএম
advertisement

সম্মেলনের ১৯ মাস পর ইন্দুরকানী উপজেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত শনিবার পরিচিতি সভা করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করা হয়েছে। তবে ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন না করায় কমিটি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় নেতারা। গত বছর ২২ ফেব্রুয়ারি উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেন্দ্রীয় নেতারা অ্যাডভোকেট এম মতিউর রহমানকে সভাপতি ও মো. মনিরুজ্জামান সেলিম হাওলাদারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন।

৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে আছেন সহ-সভাপতি মাহমুদুল হক দুলাল, মনিরুজ্জামান মৃধা, মাওলানা গিয়াস উদ্দিন সেলিম, আব্দুল মজিদ বিকম, ইউসুফ আলী মোল্লা, শেখ নাসির উদ্দিন, বদিউজ্জামান বাদল, বেলায়েত হোসেন মৃধা, অ্যাডভোকেট ননী গোপাল, যুগ্ম সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান খসরু, মো. মনিরুজ্জামান সিকদার, মো. সাইদুর রহমান সাঈদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামরুল আহসান ইব্রাহীম সিকদার, হাওলাদার মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, আবুল কালাম আদাজ ইমরান, প্রচার সম্পাদক মো. মোস্তফা কামাল হাওলাদার, অর্থবিষয়ক সম্পাদক মো. শাহাদাৎ হোসেন ফকির, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক দেবাশীষ হালদার, মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক মাহাবুব আলম, দপ্তর সম্পাদক মো. লিয়াকত আলী সিকদারসহ ৭১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান সহসভাপতি মো. মনিরুজ্জামান মৃধা বলেন, বর্তমান পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে অনুপ্রবেশকারীদের মূল্যায়ন করা হয়েছে। যারা আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথে ছিলেন, তাদের গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা হয়নি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমান কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. লতিফ হাওলাদার জানান, বর্তমান কমিটিতে সিনিয়র নেতাদের বাদ দিয়ে অনুপ্রবেশকারীদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেওয়া হয়েছে। তবে নবগঠিত কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট এম মতিউর রহমান জানান, ঘরে বসে ক্ষোভ প্রকাশ করলে হবে না; দলে কাজ করতে হবে। যারা দলে কাজ করেছেন, তাদের মূল্যায়ন করা হয়েছে।

advertisement
advertisement