advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

আফগানিস্তানের জন্য জরুরি তহবিল উন্মুক্ত করল জাতিসংঘ

অনলাইন ডেস্ক
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১:৪০ পিএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০১:৫১ এএম
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

তালেবান কাবুল দখলের পরই আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। সশস্ত্র এই গোষ্ঠী ক্ষমতায় আসায় সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি হারিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বেতন ছাড়াই কাজ করছেন তারা। পরিবারের সদস্যদের মুখে দুবেলা খাবার যোগাতে হিমশিম খাচ্ছেন। এ অবস্থায় আফগানিস্তানের স্বাস্থ্যসেবা ভেঙে পড়া ঠেকাতে জরুরিভাবে তহবিল উন্মুক্ত করেছে জাতিসংঘ।

সংস্থাটির সহায়তা বিভাগের প্রধান মার্টিন গ্রিফিথস আজ বুধবার বলেন, ‘আফগানিস্তানের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা ভেঙে পড়া ঠেকাতে সাড়ে চার কোটি মার্কিন ডলার জরুরি তহবিল উন্মুক্ত করেছেন।’ কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্য আলজাজিরা এই তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রিফিথস বলেন, ‘আফগানিস্তানে ওষুধ, চিকিৎসা সরঞ্জাম ও জ্বালানি দ্রুত শেষ হয়ে যাচ্ছে। সেখানকার প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের বেতন দেওয়া হচ্ছে না। দেশটিতে জীবন রক্ষাকারী সহায়তা বাড়াতে ‘‘ইউএন সেন্ট্রাল এমারজেন্সি রেসপোন্স ফান্ড’’ থেকে সহায়তা তহবিল উন্মুক্ত করেছি।’

গত মাসে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর আফগানিস্তানের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা সংকটে পড়ে। বিশ্বব্যাংক ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ আন্তর্জাতিক দাতারা আফগানিস্তানকে অর্থায়ন বন্ধ করে দিয়েছে, সাহায্য বিতরণকে জটিল করে তুলেছে এবং অনেক স্বাস্থ্যকেন্দ্রকে অপ্রতুল রেখেছে। ফলে মানবিক বিপর্যয়ের মুখে রয়েছে আফগানিস্তান।

তালেবান কাবুল দখলের পর দেশ ছেড়ে এখনো পালানোর চেষ্টা করছেন সাধারণ মানুষ। তারা ক্ষমতায় আসার পরই নারীরা কর্মস্থলে যোগ দিতে পারছেন না। অনেক পুরুষ চাকরি হারিয়েছন। আবার কেউ চাকরি করলেও বেতন পাচ্ছে না। অনেক আফগান সরকারি কর্মচারী উপায় না পেয়ে রাস্তায় ট্যাক্সি চালাচ্ছেন এবং বিভিন্ন পণ্য বিক্রি করছেন। ভুক্তভোগী এসব কর্মচারীরা হুঁশিয়ারি করেছেন, দ্রুত এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। অন্যথায় দেশে একটি মানবিক সংকট তৈরি হবে।

আকরামুদ্দিন নামে এক ব্যক্তি আফগান সংবাদমাধ্যম টলোনিউজকে বলেন, ‘১৮ বছর ধরে একটি সামরিক সংস্থায় কাজ করছি। গত সাত মাস ধরে কোনো বেতন পাইনি। তারা আমার বেতন দেয়নি। আমি একটি ভাড়া বাসায় থাকি। বাসা ভাড়া ৫০০০ টাকা ও বিদ্যুতের জন্য ২ হাজার টাকা দিতে হচ্ছে। অথচ এখন আমার ১০ টাকা আয় নেই।’

এদিকে, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছে আফগানিস্তানের তালেবান সরকার। এ জন্য চলতি সপ্তাহে জাতিসংঘকে একটি চিঠি দিয়েছে তারা।

advertisement