advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার চক্রান্ত করছে : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ অক্টোবর ২০২১ ০৩:৫০ পিএম | আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০২১ ০৩:৫০ পিএম
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পুরোনো ছবি
advertisement

সরকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার চক্রান্ত করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ বৃহস্পতিবার এক আলোচনা সভায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সরকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষার ক্ষেত্রে দেশে একটা স্থিতিশীল অবস্থা রাখতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। আপনারা দেখেছেন পত্রিকায় এসেছে, হিন্দু ভাইদের যে দুর্গাপূজা হচ্ছে, সেই দুর্গাপূজায় কতগুলো অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ করে কুমিল্লায় ও চাঁদপুরে। চাঁদপুরে তিনজন পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে এবং নির্বিচারে গুলি করেছে। এই যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করবার যে চক্রান্ত -এটা এই সরকারের চক্রান্ত। তারা এদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে চায়, ধ্বংস করতে চায় এবং দেশে স্থিতিশীলতার নষ্ট করতে চায়। আমরা এই সব ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং একই সঙ্গে অবিলম্বে প্রকৃত অপরাধী যারা তাদেরকে গ্রেপ্তার করে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আপনারা শুনেছেন যে, কোরআন শরীফ নিয়ে রেখে পূজামন্ডপে। কে করেছ? যারা করেছে তারা এই সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্যই করেছে, দেশে একটা স্থিতিশীলতার নষ্ট করার জন্যই করেছে।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন ‘অন্যদিকে আবার পুলিশ গুলি চালায় নির্বিচারে সেটাও একই কারনে তারা করেছে। একটা জায়গা না, বহু জায়গা আপনার এগুলো করেছে। আমি আপনাদেরকে সর্তকতার সঙ্গে বলতে চাই, আমাদের এই দেশ একটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আমরা হাজার বছর ধরে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে বাস করি। এসব ঘটনা যারা ঘটায় তারা সম্পূর্ণভাবে সরকারের এজেন্সির মাধ্যমে দেশে অশান্তি সৃষ্টি করবার জন্য এবং আসল জায়গা থেকে অন্য দিকে দৃষ্টি নেয়ার জন্য করছে।’

ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি কার্যালয়ের মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী সমবায় দলের ১১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়। সংগঠনের সভানেত্রী অধ্যক্ষ নূর আফরোজ বেগম জ্যোতির সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, ছাত্রদলের সাবেক নেতা ইসহাক সরকার প্রমুখ নেতারা বক্তব্য দেন।

advertisement