advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ভারতের দেওয়া অ্যাম্বুলেন্স পেল কুমুদিনী হাসপাতাল

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
১৪ অক্টোবর ২০২১ ১০:০০ পিএম | আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০২১ ১০:৫০ পিএম
ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহার হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করেন। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে কুমুদিনী হাসপতালে একটি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স প্রদান করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহার হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করেন।

এ সময় হাই কমিশনারের স্ত্রী সঙ্গীতা দোরাইস্বামী, হাইকমিশনের দ্বিতীয় সেক্রেটারি (পাবলিক ডিপলোম্যাসি) দিপ্তী এ্যানাঘাট, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. প্রদীপ কুমার রায় ও কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. আব্দুল হালিম উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটে ভারতীয় হাইকমিশনার কুমুদিনী হাসপাতালে এসে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা। পরে কুমুদিনী হাসপাতাল পরিদর্শন করে ভারতেশ্বরী হোমসে যান বিক্রম দোরাইস্বামী। এ সময় তিনি কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারী, হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স এবং মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বক্তৃতা দেন।

হাইকমিশনার তার বক্তব্যে বলেন, ‘হস্তান্তরকৃত অ্যাম্বুলেন্সটি আধুনিক। জরুরি রোগীদের জীবন রক্ষাকারী যন্ত্রপাতি দ্বারা সজ্জিত। যা চিকিৎসার জন্য হাসপাতালগামী রোগীদের জরুরি সেবা এবং ট্রমা লাইফ সাপোর্ট প্রদান করবে। এ ছাড়া করোনা পরবর্তীকালেও বাংলাদেশের মানুষের জন্য মানসম্মত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের সব সম্প্রদায়ের মানুষের দ্বারা শারদীয় দুর্গাউৎসব আনন্দদায়কভাবে উদযাপন হচ্ছে। এ দেশের মানুষের মানব সেবার মনোভাব এবং অন্তর্ভুক্তিমুলক ঐতিহ্য ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে প্রতিফলিত করে। যার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মানুষের স্বাধীনতার সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।’

পরে ভারতীয় হাইকমিশনার নৌকা যোগে লৌহজং নদী পার হয়ে দানবীর রণদা প্রসাদ সহার নিজ বাড়ির পূজা মণ্ডপে যান। সেখানে দুর্গাপূজা উপলক্ষে আয়োজিত আরতি অনুষ্ঠান উপভোগ করেন এবং পূজারীদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

advertisement