advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

১৯ মাস পর আজ খুলছে চবি-খুবি

নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা, দিনাজপুর ও চবি প্রতিনিধি
১৯ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২১ ১০:৪৯ পিএম
advertisement

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে দীর্ঘ ১৯ মাস বন্ধ থাকার পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি) আজ মঙ্গলবার খুলছে। বিশ্ববিদ্যালয় দুটি খোলার প্রস্তুতি হিসেবে গতকাল সোমবার থেকে আবাসিক হলগুলো খুলে দিয়েছে প্রশাসন। সকালে বিভিন্ন হলের প্রভোস্ট ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা আবাসিক শিক্ষার্থীদের চকলেট, ফুল, মাস্ক ও স্যানিটাইজার দিয়ে বরণ করে নেন।

advertisement

এদিকে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে গত ১৭ অক্টোবর থেকে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের সরাসরি শিক্ষা র্কাযক্রম শুরু হয়েছে। সকাল থেকে বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থীরা আসতে শুরু করে। হাবিপ্রবির ২০২০-২২১ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ

ভর্তিপরীক্ষায় ক ইউনিটে ৭ হাজার ২৫ জন অংশ নেন।

চবিতে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সকালে থার্মোস্কোপে তাপমাত্রা মেপে, হ্যান্ড স্যানিটাইজ করে শিক্ষার্থীরা একে একে হলে প্রবেশ করছেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় পরিচয়পত্র ও টিকা কার্ডের ফটোকপি জমা দিয়ে নিবন্ধন খাতায় নাম লিখতে হচ্ছে। কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘদিন পর আবাসিক হলে আসতে পেরে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থী। শামসুন্নাহার হলের আবাসিক শিক্ষার্থী নাহিদা আক্তার বলেন, বাড়িতে থেকে প্রায় সবার সঙ্গে এক প্রকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। এখন আবার সবার সঙ্গে দেখা হচ্ছে। মার্কেটিং বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস নিপা বলেন, দীর্ঘদিন কটেজে আবদ্ধ ছিলাম। এখন হল খুলছে। ভালো লাগছে। সমাজতত্ত্বের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী গৌরি রায় আমাদের সময়কে বলেন, হল বন্ধ থাকায় পরীক্ষার জন্য বাসা ভাড়া করে থাকতে হয়েছে। হলো খোলায় খরচ কমার সঙ্গে সুবিধাও বেড়েছে সব দিক থেকে।

ছাত্রী হলগুলো গতকাল খোলা হলেও ছাত্রদের হলগুলো আগে থেকেই খোলা ছিল। অভিযোগ রয়েছে- ছাত্রলীগ নেতারা অনেকটা কর্তৃপক্ষকে তোয়াক্কা না করেই হলে অবস্থান করছিলেন।

চবির জননেত্রী শেখ হাসিনা হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক একেএম রেজাউর রহমান আমাদের সময়কে বলেন, যারা অন্তত এক ডোজ টিকা দিয়েছে তাদের হলে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে। আর যারা এখনো টিকা দেয়নি তাদের চবি মেডিক্যালে যোগাযোগ করতে বলেছি। তাদের জন্য আমরা বিশেষ টিকার ব্যবস্থা করেছি।

এদিকে গতকাল খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) আবাসিক হলগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে। মাস্টার্স ও স্নাতক চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীরা সকাল ৯টা থেকে হলে ফিরতে শুরু করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষার্থীরা হলে ফেরায় ক্যাম্পাসে আবারও প্রাণের ছোঁয়া লেগেছে। আগামী ২৬ অক্টোবর থেকে অন্যান্য বর্ষের শিক্ষার্থীরা পর্যায়ক্রমে হলে উঠতে পারবেন। তবে আবাসিক শিক্ষার্থীদের পরিচয়পত্র, টিকা নেওয়ার সনদ/রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি স্ব স্ব হলে জমা দিতে হবে। সব বর্ষের শিক্ষার্থীদের ৩১ অক্টোবর থেকে সশরীরে দ্বিতীয় টার্মের (সেমিস্টার) রিভিউ ক্লাস শুরু হবে। স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তরের (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) শিক্ষার্থীদের ৫ ডিসেম্বর থেকে পরীক্ষা শুরু হবে।

হাবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষার সচিব অধ্যাপক মো. ফজলুল হক জানিয়েছেন, গত রবিবার দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষায় ৭ হাজার ২৫ জন অংশ নেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব নিরাপত্তার মধ্যে বিশ^বিদ্যালয়ের ১২২টি কক্ষে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

advertisement