advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ডাবল হ্যাটট্রিকে ক্যামপারের ইতিহাস

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৯ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২১ ১০:৫৭ পিএম
advertisement

ম্যাচ শুরুর আগে কার্টিস ক্যামপার কি ভাবতে পেরেছিলেন, অবিশ্বাস্য কিছু একটা ঘটতে চলেছে? আয়ারল্যান্ডের ২২ বছর বয়সী ডানহাতি পেসার বিশ্বকাপ মঞ্চে ডাবল হ্যাটট্রিক করে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছেন। গতকাল নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে টানা চার বলে তিনি ফিরিয়ে দেন কলিন আকারম্যান, রায়ান টেন ডেসকাটে, স্কট এডওয়ার্ডস ও রুলফ ফন ডার মেরওয়াকে। ক্যামপারের ডাবল হ্যাটট্রিকের ম্যাচে ২০ ওভারে ১০৬ রানে অলআউট হয় নেদারল্যান্ডস। জবাবে পল স্টারলিং ও গ্যারেথ ডিলানির ব্যাটে ২৯ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটে জয় পায় আয়ারল্যান্ড। ২৪ রানে ৪ উইকেট পাওয়া কার্টিস ক্যামপার ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন। জয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করল আয়ারল্যান্ড।

আবুধাবিতে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা নেদারল্যান্ডসের শুরুটা ভালো ছিল না। দলীয় ২২ রানের মধ্যে দুই উইকেট হারায় তারা। এর পরই ক্যামপারের হানা। দশম ওভারের দ্বিতীয় বলে আকারম্যানকে দিয়ে উইকেট শিকারের শুরু। এর পর একে একে সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন রায়ান টেন ডেসকাটে, স্কট এডওয়ার্ডস ও রুলফ ফন ডার মেরওয়াকে। টানা চার বলে চার উইকেট নেওয়াকে ক্রিকেটের পরিভাষায় বলে ডাবল হ্যাটট্রিক। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আয়ারল্যান্ডের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিকের কীর্তি গড়লেন ক্যামপার। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এর আগে হ্যাটট্রিক করেছিলেন ব্রেট লি। ২০০৭ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার পেসার ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছিলেন।

দলীয় ৫১ রানের মধ্যে ৬ উইকেট হারায় নেদারল্যান্ডস। দলটির হয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন ম্যাক্স। আটে নামা অধিনায়ক পিটার ২১ রান করেন। শেষ পর্যন্ত ১০৬ রানে থামে তাদের ইনিংস। ছোট লক্ষ্য তাড়ায় দলীয় ৩৬ রানের মধ্যে দুই উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড। পল স্টারলিং মন্থর (৩৯ বলে ৩০*) ব্যাটিং করলেও চারে নামা ডিলানি ঝড়ো ব্যাটিং করেন। ২৯ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৪৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। আর তাতেই ১৫.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে আয়ারল্যান্ড। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ড মুখোমুখি হবে শ্রীলংকা। অন্যদিকে নেদারল্যান্ডস খেলবে নামিবিয়ার বিপক্ষে।

advertisement
advertisement