advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

নানা আয়োজনে জন্মদিন উদযাপিত
শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস অদম্য আত্মবিশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৯ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০২১ ১১:১৯ এএম
advertisement

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট ভাই শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উদযাপিত হয়েছে। এবারই প্রথম জাতীয়ভাবে দিবসটি উদযাপন করা হলো। দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য ছিল- ‘শেখ রাসেল দীপ্ত জয়োল্লাস, অদম্য আত্মবিশ্বাস’। দিনটি উপলক্ষে গতকাল সোমবার সরকারিভাবে নানা আয়োজনের পাশাপাশি রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও হাতে নেয় বিভিন্ন কর্মসূচি।

‘শেখ রাসেল দিবস-২০২১’ উপলক্ষে গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ রাসেল স্বর্ণপদকসহ অন্যান্য প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত মূল অনুষ্ঠানে তিনি ভার্চুয়ালি অংশ নেন। এর আগে সকালে বনানী কবরস্থানে শেখ রাসেলের কবরে শ্রদ্ধা জানায় আওয়ামী লীগ। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন সভাপতিম-লীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, আবদুুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আহমেদ হোসেন, আবু সাইদ আল মাহমুদ স্বপন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ। এ ছাড়া ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, কৃষক লীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মৎস্যজীবী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

সকালে শেখ রাসেল রোলার স্কেটিং স্টেডিয়াম প্রান্তে রোলার স্কেটিং প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শেখ রাসেল দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী গণভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্মারক ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম এবং সিলমোহর অবমুক্ত করেন। তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ

দুপুর ৩টায় এক সেমিনার এবং সন্ধ্যা ৬টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে কনসার্টের আয়োজন করে। কনসার্টে প্রধান অতিথি ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উদ্যোগেও এদিন আলোচনাসভা, দোয়া মাহফিল ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে শেখ রাসেলকে নিয়ে কথা বলেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুুরী।

দিনটি উপলক্ষে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন কনভেনশন সেন্টারে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে কৃষক লীগ। সংগঠনের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটুর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায়বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া প্রমুখ। এ ছাড়া কোরআন খতম, মিলাদ এবং অসহায় ও দুস্থদের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে যুবলীগ। রাজধানীর বনানী কবরস্থানের মূল ফটকে এ আয়োজন করে সংগঠনটি। আলোচনাসভা, দোয়া মাহফিল ও কেক কাটার মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করে আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ। গুলিস্তানে নিজেদের কার্যালয়ের এ আয়োজনে সংগঠনের সভাপতি মো. সায়ীদুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ। মিরপুরে শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণকেন্দ্রে নবনির্মিত ‘শেখ রাসেল’ মঞ্চ উদ্বোধন, আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থবিভাগ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগও নানা আয়োজনে দিনটি উদযাপন করেছে। এ উপলক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আরও বক্তব্য দেন মহাহিসাব-নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবু হেনা রহমাতুল মুনিম, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব মিস ফাতিমা ইয়াসমিন এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ।

শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে সচিবালয়ে নিজেদের সম্মেলনকক্ষে আলোচনাসভার আয়োজন করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। সভার শুরুতে মন্ত্রী শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। কেক কেটে, গাছের চারা রোপণ ও আলোচনাসভার মাধ্যমে শেখ রাসেলের জন্মদিন উদযাপন করেছে কৃষি মন্ত্রণালয়। ঢাকার ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভার আয়োজন করে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ, দোয়া মাহফিল ও আলোচনাসভার মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। রাজধানীর মৎস্য ভবনে মৎস্য অধিদপ্তরের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। পেট্রোবাংলায় জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ আলোচনাসভাসহ নানা আয়োজনে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন করেছে। আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিদ্যুৎ, জ¦ালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আনিসুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনায় বিপিসি চেয়ারম্যান এবিএম আজাদ ও পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান এবিএম আবদুল ফাত্তাহ বক্তব্য দেন। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) ঢাকায় তাদের কার্যালয়ে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে শেখ রাসেলের জন্মদিন উদযাপন করেছে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এর আগে প্রতিমন্ত্রী বিআইডব্লিউটিসি কার্যালয়ে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে ঢাকা পিটিআই প্রাঙ্গণে আলোচনাসভার আয়োজন করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এদিন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ‘শেখ রাসেলের পাঠশালা’ উদ্বোধন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসংলগ্ন ডাস চত্বরে এই পাঠশালার উদ্বোধন করা হয়। একই সঙ্গে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ, বস্ত্র ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, জাতীয় জাদুঘর, শিল্পকলা একাডেমি, সোনালী ব্যাংক, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, জাপানের টোকিওস্থ এবং ভিয়েতনামে হ্যানয় বাংলাদেশ দূতাবাস, দনিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় শেখ রাসেল দিবস উদযাপন করেছে। দিনটি উপলক্ষে বাংলা একাডেমি তাদের প্রকাশিত ‘রাসেলের জন্য ভালোবাসা’ শীর্ষক গ্রন্থের আনুষ্ঠানিক মোড়ক উন্মোচন করে।

advertisement
advertisement