advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বন্ধ হয়নি ভেজাল তেল বিক্রি : কার্যকর ব্যবস্থা নিন

২৩ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম
আপডেট: ৪ ডিসেম্বর ২০২১ ০২:৫৪ পিএম
advertisement

চেষ্টা চালিয়েও জ্বালানি তেলে ভেজাল ও ওজনে কম দেওয়া বন্ধ করতে পারেনি বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি)। মাঝে মধ্যে তেল বিপণন কোম্পানিগুলোয় লোক দেখানো অভিযান চললেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। দেশের পেট্রল পাম্পগুলোয় দিব্যি বিক্রি হয় ভেজাল তেল। এতে বোঝা যায়, এ ব্যাপারে সরকার বা নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ সক্রিয় বা কঠোর নয়।

আমরা মনে করি, ভেজাল মিশিয়ে এভাবে জ্বালানি তেল বিক্রির কর্মকাø একটি বড় ধরনের দুর্বৃত্তপনা এবং তা গুরুতর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে। কারণ এতে একদিকে প্রতারিত হচ্ছেন ক্রেতারা, অন্যদিকে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে লাখো যানবাহন। ভেজাল জ্বালানির কারণে ঘন ঘন বিকল হয়ে পড়ছে গাড়ির ইঞ্জিন। এসব যানবাহনের মধ্যে গণপরিবহন যেমন রয়েছে, তেমনি আছে ব্যক্তিগত গাড়িও। অনেকের বহু কষ্টে কেনা গাড়িটি অকেজো হয়ে পড়ছে এই দুর্বৃত্তপনার কারণে। শুধু তা নয়, ভেজাল মেশানো জ্বালানি পরিবেশে দূষণ ছড়ায় বেশি। সরকারের আর্থিক ক্ষতির বিষয়টি তো রয়েছেই। তাই এ ভেজালের কারবার কঠোরভাবে দমন করা দরকার। এ বিষয়ে কোনো রকম নমনীয়তা প্রদর্শনের সুযোগ নেই। কারখানা ও ডিলারদের দায়ী করেছে বিপিসি। বিক্রেতারাও দায় এড়াতে পারেন না।

সুতরাং ভোক্তার অধিকার রক্ষায় অবশ্যই কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। আমরা আশা করি, ভেজাল রোধে ফিলিং স্টেশনগুলোয় নিয়মিত অভিযান চালাতে হবে। সরকারের কাছে বিষয়টি যথাযথ গুরুত্ব পাবে। সাধারণ মানুষও রেহাই পাবে ভেজাল জ্বালানি তেল থেকে।

 

 

 

 

advertisement
advertisement