advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

সময়রেখার টীকাভাষ্য

ইলিয়াস বাবর
২৬ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ নভেম্বর ২০২১ ১১:১৮ পিএম
advertisement

ইভান অনিরুদ্ধের কথাসাহিত্য নিয়ে আগ্রহী পাঠকমাত্রই ওয়াকিবহাল। গল্প-উপন্যাস নিয়েই তার সময়যাপন। ফাঁকতালে কবিতা এসে হাজিরা দিলেও তিনি মূলত কথাসাহিত্যের নিষ্ঠাবান শব্দশ্রমিক। নিজের বোঝাপড়া, পরিপার্শ্ব, বিশ্বাস ও সময়ের পাদটীকা ধরতে তিনি আশ্রয় খোঁজেন উপন্যাস, কী গল্পের শরীরে। মনমতো শব্দের শামিয়ানা সাজিয়ে অনুচ্ছেদের পর অনুচ্ছেদ ঔপন্যাসিক বয়ান করে যান সমসাময়িক আলোপরম্পরায়। নিজের দেখা-বোঝা এবং দৈশিক বলয়সহ বৈশ্বিক বিষয়-আশয় নিয়ে অন্যরকম এক জগৎ গড়ে তোলার অপার বিস্ময়ের নাম উপন্যাস। সাহিত্যের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে উপন্যাস স্বাধীন, বিষয়গুণে উজ্জীবিত, আলোকিত ও আলোচিত। ইভান অনিরুদ্ধ প্রণীত ‘থাকে শুধু অন্ধকার’ উপন্যাসটি পাঠের জগতে পাঠককে আমন্ত্রণ।

হিমাদ্রিকে পাঠক চেনে উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র হিসেবে। মেধাবী ছাত্র, বেকার; চাকরিপ্রত্যাশী আবার হেলায় ঠেলে দেয় চাকরির দারুণ সুযোগ। তরুকেও পাঠক জানে, সুন্দরী; পুলিশের বড় কর্তার আদুরে মেয়ে। পৃষ্ঠার ভেতর জার্নি চলতে থাকলে পাঠক দেখা পাবেন নাদেরা খালার। তার ব্যবসায়ী স্বামীরÑ যে কিনা দুম করে বিয়ে করে বসে কন্যার বয়সী এক মেয়েকে। খানিক গেলে দেখা যায় পাতিনেতা সুলতানকে- যে রকম অজস্র সুলতানে গিজগিজ করছে আজকের সমাজ। মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় পর্বে অংশগ্রহণকারী তৃতীয় লিঙ্গের এক মুক্তিযোদ্ধার সাক্ষাৎ পেয়ে পাঠক তব্ধাও খেতে পারেন নিজের কাছে। মেসজীবন, বেকারত্ব, নগরজীবন, রাজনীতি- সব মিলিয়ে ভিন্নতর এক জগতের নাম ‘থাকে শুধু অন্ধকার’। নাদেরা খালার কানাডা প্রবাসী মেয়ে রিনি- যে হিমাদ্রির প্রতি ছিল দুর্বল, তার উপস্থিতিও পাঠককে বিদেশি মেম সাহেবের কথা মনে করিয়ে দেবে। বহু বিচিত্র ঘটনাপুঞ্জের সমন্বয়ে ‘থাকে শুধু অন্ধকার’। ভাষা বড় একটা নিয়ামক যে কোনো সৃজনশীল চর্চার ক্ষেত্রে। ঔপন্যাসিক ক্ষেত্রমতে ভাষা ব্যবহারের দক্ষতা দেখিয়েছেন এ উপন্যাসে। আখ্যানজুড়ে দেশ আর সময়ের যে আর্শি লেখক মুনশিয়ানার সাহায্যে দেখান, তা অভিনন্দন পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু লেখকেরও দায় থাকে নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার। তার আগে প্রকাশিত ‘নিষিদ্ধ লোবানের ঘ্রাণ’কে যে ছাড়িয়ে যেতে পারেন না ইভান অনিরুদ্ধ কিংবা বলা যায়, প্রায় ওই উপন্যাসেরই ভেতর ঘুরতে থাকে ‘থাকে শুধু অন্ধকার’। হতে পারে একটা ঘোর অথবা সময়ের চাবুক লেখককে দিয়ে এমনটা লিখিয়ে নিয়েছে। তবুও ইভান অনিরুদ্ধের সরাসরি বলার যে সৎ সাহস, সময়ের বুকে বসে সময়ের কলিজা ছিঁড়ে নির্মেদ নিয়ে আসার যে শব্দযন্ত্রণা, তা পাঠককে ভাবাতে বাধ্য করে। উপন্যাসের সীমাহীন প্রান্তরে ইভান অনিরুদ্ধের এই যাত্রা অব্যাহত থাকুক।

থাকে শুধু অন্ধকার ॥ ইভান অনিরুদ্ধ ॥ প্রকাশকাল : জানুয়ারি ২০২১ ॥ প্রকাশনী : পাললিক সৌরভ ॥ প্রচ্ছদ : মোস্তাফিজ কারিগর ॥ মূল্য : ৪০০ টাকা।

advertisement
advertisement