advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বাসমালিকরা রাজি হননি হাফ পাসে

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৬ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২১ ০২:৩৩ এএম
advertisement

হাফ ভাড়ার প্রস্তাবে রাজি হননি বাসমালিকরা। বাসে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ পাস চালুর বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) ও অংশীজনদের মধ্যে সভা শেষ হয়েছে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করে বাসে হাফ পাসের বিষয়ে একটি প্রস্তাব সরকারের কাছে দেবে। এ জন্য সপ্তাহখানেক সময় লাগতে পারে বলে তারা আভাস দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে বনানীতে বিআরটিএর প্রধান দপ্তরে সভা শুরু হয়। শুরুর দেড় ঘণ্টার মধ্যেই বৈঠক শেষ হয়ে যায়। বৈঠকে বাসমালিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বেসরকারি বাসে সরকার ভর্তুকি দিচ্ছে না। যানজটে সড়কে ট্রিপ কমে গেছে। টায়ারসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশের দাম বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ পাস চালু করা হলে বাসমালিকদের লোকসান গুনতে হবে।

বৈঠক শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা মহানগরে শিক্ষার্থীরা বাসে হাফ ভাড়ার দাবিতে আন্দোলন করছেন। তাদের এ দাবির প্রতি গুরুত্ব দিয়ে সরকার এ সমস্যা সমাধানে আন্তরিক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, সরকার শিক্ষার্থীদের এ দাবির প্রতি বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছে বলেই আজকে বৈঠকে অংশীজনদের নিয়ে বসেছি।

বেসরকারি বাসে অর্ধেক ভাড়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত আমরা চাপিয়ে দিতে পারি না। কারণ বাসে কত শতাংশ ভাড়া ছাড় দিতে হবে আমরা আজ সেই সিদ্ধান্ত দেওয়ার পর বাসমালিকরা ধর্মঘট ডাকতে পারেন। তাতে জনদুর্ভোগ বাড়বে।

মো. নজরুল ইসলাম বলেন, আমরা পরিবহন মালিক সমিতিকে নিজেদের মধ্যে আলাপ-আলোচনা করে একটি যুক্তিসঙ্গত প্রস্তাব দেওয়ার জন্য বলেছি। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে এ প্রস্তাব আমাদের কাছে দেবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিকে বলা হয়েছে, তারাও তাদের একটি প্রস্তাব আমাদের কাছে দেবেন। সব পক্ষ দ্রুত প্রস্তাব জমা দেবে।

বিআরটিসি তাদের বাসে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি সুবিধা দেবে। কারণ তাদের নতুন বাস যুক্ত হয়েছে। এ বিষয়ে বিআরটিসি প্রতিনিধি বৈঠকে সম্মত হয়েছেন। এ নিয়ে শুক্রবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বক্তব্য দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

গতকালের সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের সভাপতিত্বে সভায় জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব, আইজিপি, পরিবহন মালিক সমিতির প্রতিনিধি, শ্রমিক ফেডারেশনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পৃথক সভায় জানিয়েছেন, বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া চালুর বিষয়ে আগামী শনিবারের মধ্যে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্তে আসা সম্ভব। গতকাল দুপুরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া চালুর বিষয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করছি। শুধু সরকারি বাসে নয় বেসরকারি বাসেও শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া চালুর বিষয়ে আমি সংশ্লিষ্টদের কাছে সহযোগিতা কামনা করব। বিআরটিএর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বাসমালিকদের সঙ্গে বসে এ ব্যাপারে একটি যৌক্তিক সিদ্ধান্তে আসবেন বলে আমি আশা রাখি।

রাজধানীর ১২৮টি রুটে বাস-মিনিবাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের ফলে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি চলছে। প্রথা চালু থাকলেও বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের চাপে কোনো কোনো বাস কোম্পানি হাফ ভাড়া নেওয়ার জন্য রাজি হয়েছে। ২০১৮ সালে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনেও ৯টি দাবির মধ্যে হাফ ভাড়া নেওয়ার বিষয়টি ছিল। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, টাস্কফোর্সের মাধ্যমে বাসে শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ধেক ভাড়া পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। তবে কবে করা হবে তা স্পষ্ট নয়। দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের গণপরিবহনে (ট্রেন, বাস ও লঞ্চে) ভাড়া অর্ধেক করার দাবিতে দায়ের করা রিট আবেদনের শুনানি করতে সায় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিষয়টি উপস্থাপনের পর গতকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ আবেদনটি আগামী রবিবার কার্যতালিকায় রাখার আদেশ দেন। এদিন আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। তার আগে বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় জনস্বার্থে এ রিট করেন তিনি।

advertisement
advertisement