advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ডিআরএসে চটেছেন কোহলি

ক্রীড়া ডেস্ক
১৫ জানুয়ারি ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২২ ১১:১৪ পিএম
advertisement

কেপটাউনে চলমান ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচের তৃতীয় দিন ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমের (ডিআরএস) সিদ্ধান্তে দারুণভাবে ক্ষুব্ধ ভারতের খেলোয়াড়রা। ডিআরএসের একটি সিদ্বান্ত ভারতের বিপক্ষে যাওয়ায় কোনোভাবেই সেটি মেনে নিতে পারেননি বিরাট কোহলি বাহিনী।

কেপটাউনে জয়ের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২১২ রানের টার্গেট দেয় ভারত। সেই টার্গেটে ব্যাট হাতে নেমে ২০ ওভারে ১ উইকেটে ৫৮ রান তুলে তৃতীয় দিন শেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। ২১তম ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডিন এলগারের বিপক্ষে লেগ বিফোর আউটের আবেদন করেন ভারতের স্পিনার রবিচন্দ্রন অশি^ন। সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে আউট দেন দক্ষিণ আফ্রিকার অন ফিল্ড আম্পায়ার মারাইস এরাসমাস।

এতে রিভিউ নেন এলগার। রিভিউতে দেখা যায় বল উইকেটের ওপর দিয়ে চলে যাচ্ছে। অথচ বল নিচের দিকেই ছিল। কিন্তু টিভির সেই রিপ্লে দেখে এবং থার্ড আম্পায়ার আউট বাতিল করলে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেন মাঠে থাকার ভারতের খেলোয়াড়রা। স্টাম্প মাইকের কাছে গিয়ে ঝুঁকে ভারত অধিনায়ক কোহলি বলেন, ‘দারুণ ডিআরএস, খুব ভালো খেললে।’ তিনি আরও বলেন, ‘শুধু বিপক্ষে নয়, নিজের দলের দিকেও দেখ, সব সময় লোককে ধরতে চাইছে।’ ভারতের সহঅধিনায়ক লোকেশ রাহুল স্টাম্পের মাইকের কাছে গিয়ে বলেন, ‘গোটা দেশ খেলছে ১১ জনের বিপক্ষে।’ বোলার অশ্বিনের তির দক্ষিণ আফ্রিকার সম্প্রচারকারী সংস্থা সুপার স্পোর্টসের দিকে। ডানহাতি এ অফ স্পিনার বলেন, ‘সুপার স্পোর্টস অন্যভাবে জেতার পথ খোঁজা উচিত।’

টিভি রিপ্লে দেখে অবাক হয়েছেন আউট দেওয়া এরাসমাসও। তিনি বলেন, ‘এটি অস্বাভাবিক।’ তার কথাও স্টাম্পের মাইকে শুনতে পাওয়া যায়। দিনের খেলা শেষে ভারতের বোলিং কোচ পরশ মামব্রে বলেন, ‘আমরা সবাই দেখেছি কী ঘটেছে, আপনারাও দেখেছেন। বাকি বিষয়টা আমি ম্যাচ রেফারির ওপর ছেড়ে দেব। এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না।’ সুপার স্পোর্টের পক্ষ থেকে পরবর্তী সময় টুইট করে ডিআরএসের সেই ঘটনা নিয়ে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়। তারা জানায়, পিচে বাউন্স রয়েছে। এ জন্যই বলের উচ্চতা বেশি ছিল। এলগার সে জন্যই আউট হননি।

তবে ভারতীয় খেলোয়াড়দের এমন আচরণে হতাশ দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার লুঙ্গি এনগিদি। ভারতের ওপর ক্ষোভ ঝেড়ে এনগিদি বলেন, ‘এ ধরনের আচরণ প্রমাণ করে, তারা বিরক্ত হয়ে গিয়েছিল। বিপক্ষে দল সেটির সুযোগ নেয়। কখনোই খুব বেশি আবেগ প্রকাশ করে ফেলা উচিত নয়। তবে আমরা দেখলাম মাঠে আবেগ খুব বেশি ছিল। এটি বলে দেয় যে, তারা চাপ অনুভব করছে।’

advertisement
advertisement