advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গোমতী নদীতে অবৈধভাবে মাটি কাটা
ট্রাক্টরে আগুন দিলেন দেবিদ্বারের ইউএনও

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
১৯ জানুয়ারি ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০২২ ০২:০৬ এএম
advertisement

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গোমতী নদীর দুই পাড়ে দেদার মাটি কাটা চলছে। শীত আসার পরপরই দুই পাড়ের প্রায় ৭০ কিলোমিটার বাঁধজুড়ে রাত-দিন শত শত ট্রাক্টর ওঠানামা করছে। নদীর ভেতরের মাটি কাটার কারণে হুমকির মুখে পড়েছে বাঁধ, সড়ক ও সেতু। এরই মধ্যে উপজেলা প্রশাসন গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে গোমতী নদীর বেগমাবাদ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় গোমতী নদী থেকে মাটি কাটার সময় একটি ট্রাক্টর জ্বালিয়ে দেওয়া হয় এবং আটককৃত তিন ব্যক্তির কাছ থেকে সাড়ে তিন লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আশিক উন নবী তালুকদার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দেবিদ্বার থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. জসিম উদ্দিনসহ থানা পুলিশের একটি টিম।

ইউএনও অফিস সূত্রে জানা যায়, গোমতী নদী থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটা ও তা অন্যত্র সরানোর দায়ে একটি ট্রাক্টরকে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় তিন ব্যক্তিকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন- চরবাকর এলাকার ময়নাল হোসেনের ছেলে মো. সোহাগ, একই এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে মো. মজিবুর রহমান এবং কবির হোসেনের ছেলে মো. শরীফুল ইসলাম। পরে তাদের জরিমানা করা হয়।

গোমতী নদীর আশপাশের একাধিক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, প্রতি বছর শীত এলে এ এলাকায় ধুলাবালিতে আচ্ছন্ন হয়ে যায়। ঘরবাড়ি

বিছানাপত্রে বালুর স্তূপ পড়ে। দুর্ভোগ পোহাতে হয় রাস্তা ঘাটে চলাচল করা মানুষের।

তাদের অভিযোগ, গোমতী নদীর মাটি কাটার পেছনে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কিছু অসাধু চক্র জড়িত। তারা মাটি কাটার সিন্ডিকেট থেকে প্রতি মাসে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেন। এ কারণে উপজেলা প্রশাসন বারবার অভিযান পরিচালনা করলেও সিন্ডিকেট বন্ধ করা যাচ্ছে না।

ইউএনও আশিক উন নবী তালুকদার বলেন, গোমতী নদীকে বাঁচাতে আরও কঠোর হবে উপজেলা প্রশাসন। যারা মাটি কাটার সঙ্গে জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।