advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লুকানো শহর বানিয়েছে ফিনল্যান্ড

রুশ হামলার শঙ্কা ।। ৯ লাখ মানুষ কয়েক মাস আশ্রয় নিতে পারবে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৭ মে ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৬ মে ২০২২ ১০:৩৮ পিএম
advertisement

ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিঙ্কির নিচে একটি ‘লুকানো শহর’ বানানো হয়েছে। এ শহরে আছে সড়ক, খেলার মাঠ, সুইমিংপুল, হকি মাঠ, গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা। এবিসি নিউজ জানিয়েছে, পারমাণবিকসহ যে কোনো যুদ্ধের মধ্যে ৯ লাখ মানুষ কয়েক মাস ধরে সেখানে আশ্রয় নিতে পারবে। শুধু হেলসিঙ্কি নয়, দেশজুড়ে এমন পরিকল্পনা নিয়েছে দেশটি। এর কারণ হলো পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দিলে প্রতিবেশী দেশের সম্ভাব্য আক্রমণ ঠেকানো।

advertisement

বিশ্বের অন্যতম সুখী দেশের তকমা আছে ফিনল্যান্ডের; কিন্তু দেশটির সাম্প্রতিক কিছু কর্মকা-ের ফলে সুখী তকমায় দাগ লাগছে। কারণ দেশজুড়ে বানানো হয়েছে ৫ হাজার বোমা শেল্টার, ৫০ হাজার বাংকার।

দেশটির প্রতিরক্ষা দপ্তর জানিয়েছে, আক্রমণ থেকে নিজেদের রক্ষার জন্যই এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ফিনিশ ইনস্টিটিউট ফর ইন্টারন্যাশনালের শীর্ষস্থানীয় গবেষক চ্যার্লি স্যালোনিয়াস-পাসটারনাক বলেন, ‘একটি ঐতিহাসিক ধারণা আছে, সব সময় আপনাকে প্রস্তুত থাকা উচিত। রাশিয়া ফিনল্যান্ডে আক্রমণ চালাতে পারে, এটি এ প্রজন্ম বা পরবর্তী প্রজন্ম- যে কোনো সময় হতে পারে।’

ফিনল্যান্ড তাদের অনেক অব্যবহৃত জমি এ ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছে। হেলসিঙ্কি তাদের জনসাধারণের দৈনন্দিন ব্যবহারের জায়গাগুলোকে আশ্রয়কেন্দ্র, বোমা শেল্টার ও বাংকার বানিয়েছে। বাংকারে ভূগর্ভস্থ খেলার মাঠ, সুইমিংপুল, হকি খেলার মাঠ, গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা আছে।

রাশিয়ার পাশের দেশ ফিনল্যান্ড। এই দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত আছে ৮০০ মাইল। এত দিন ন্যাটোতে যোগ দিতে চাইত না ফিনল্যান্ড; কিন্তু হঠাৎ ন্যাটোতে যোগদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণ শুরুর তিন মাসের কম সময়ের মধ্যে ফিনল্যান্ডের এ সিদ্ধান্ত এল।

ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার এ সিদ্ধান্ত দেশটির জন্য একেবারেই বিপরীতমুখী। কারণ ৭৫ বছরের বেশি সময় ধরে তারা সামরিকভাবে নিরপেক্ষ থাকার নীতিতে অটল ছিল।

advertisement