advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বন্যার্তদের পর্যাপ্ত সহযোগিতা করছে বিএনপি: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৪ জুন ২০২২ ০৯:৫১ পিএম | আপডেট: ২৪ জুন ২০২২ ০৯:৫১ পিএম
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পুরোনো ছবি
advertisement

বিরোধী রাজনৈতিক দল হিসেবে বন্যা কবলিত মানুষের জন্য বিএনপি পর্যাপ্ত সহযোগিতা করছে বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ শুক্রবার রাজধানীর গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

advertisement

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দলের নেতাকর্মীরা প্রত্যেকে ৫০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত বন্যার্তদের আর্থিক সহায়তা করছেন। এ ছাড়া লিফলেট প্রচার করেছি। সেক্ষেত্রে সাধারণ জনগণ যদি আর্থিকভাবে সহযোগিতা করতে চায়, আমরা তাদের সহায়তাও নেব। আশা করছি স্বল্প সময়ের মধ্যে একটি পরিমাণে এসে দাঁড়াবে।’

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমাদের দলের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা যারা ত্রাণ সহায়তায় গিয়েছেন, তারা এখান থেকে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে গিয়েছেন। প্রতি প্যাকেটে প্রায় ১৫০০ থেকে ২০০০ হাজার টাকা সমপরিমাণ ত্রাণসামগ্রী থাকছে। আমরা মনে করি বিরোধী দল হিসেবে বন্যা কবলিত মানুষের জন্য যা করছি, তা যথেষ্ট হচ্ছে।’

বন্যার্তদের জন্য সরকারি সাহায্য পর্যাপ্ত নয় মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বলা হয়ে থাকে রোল মডেল, অথচ বন্যায় প্রমাণিত হয়েছে এটা কোনো কাজ করে না। আগাম সতর্কবার্তা পর্যন্ত মানুষকে দেওয়া হয়নি। জনগণকে সতর্ক করা গেলে তারা নিজেরা যেভাবে সব সময় সতর্ক হয় সেভাবে একটা ব্যবস্থা নিতে পারত। এর ফলে ৪২ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন সরকারি হিসাবে, এর মধ্যে আরও পাওয়া যেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতু উদ্বোধনের জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ করা হচ্ছে। স্কুল-কলেজ ছুটি দেওয়া হয়েছে এবং পদ্মা সেতুর আশে পাশে জেলাগুলোতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোকসজ্জার জন্য টাকা দেওয়া হয়েছে। শুধু মাত্র পাশের জেলাগুলোকেই দেওয়া হয়েছে ৫ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। আনন্দ উৎসবের জন্য টাকা বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু মানুষ যে মারা যাচ্ছে এটার জন্য তারা সেরকম ব্যবস্থা নিতে পাচ্ছেন না। এটা খুবই বিস্ময়কর ব্যাপার এবং বোঝা যায় এই সরকারের মূল লক্ষ্য জনগণ নয়, তাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে বড় বড় প্রজেক্ট উদ্বোধন করা, যাতে করে ওইখান থেকে প্রচার পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারে। যেটা বিদেশে পাচার করতে পারে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ত্রাণ জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘বিএনপি বিরোধী দলে থাকলেও আমাদের নেতাকর্মীরা  সামর্থ অনুযায়ী বন্যা দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।  পানি নেমে যাওয়ায় এখন দূরাবস্থা আরও বেড়েছে। এই অবস্থায় আমরা এ পর্যন্ত সিলেটের ১৩টি উপজেলা ও ৫টি পৌর সভায় শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে ১ লাখ ২৩ হাজার ২০০ পরিবারের মাঝে। রান্না করা খাবার ও বিশুদ্ধ পানি দিয়েছি ৪ লাখ ৫৬ হাজার মানুষের কাছে। নগদ অর্থ দিয়েছি ২৫ হাজার ৪০০ পরিবারের কাছে। দলীয় নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্থানে ব্যক্তি উদ্যোগে আশ্রয়কেন্দ্র খুলেছেন, সেখানেও প্রতিদিন শুকনো ও রান্না করা খাবার দেওয়া হচ্ছে।’

advertisement