advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আকাশের দিকে তাকিয়ে সাকিবরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৮ জুন ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৮ জুন ২০২২ ১২:১৯ এএম
advertisement

সেন্ট লুসিয়া টেস্ট একমাত্র বাঁচাতে পারে বৃষ্টি! তা না হলে তৃতীয় দিনশেষেই তো হারের খুব কাছে ছিল বাংলাদেশ দল। গতকাল বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ে চতুর্থ দিনের খেলা মাঠে গড়ায়নি। ড্রেসিংরুমে বসে আকাশের দিকে চেয়েছিলেন সাকিব-তামিমরা। অ্যান্টিগা টেস্ট চার দিনে হার। সেন্ট লুসিয়া টেস্টের ভাগ্যেও কি একই পরিণতি লেখা আছে? নির্ধারিত সময়ে খেলা মাঠে গড়ালে চতুর্থ দিনের শুরুর প্রথম ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই হয়তো হারের তেতো স্বাদ পেতে হতো বাংলাদেশকে। বৃষ্টির কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয় পেতে অপেক্ষা বেড়েছে। পাঠক ম্যাচের কি অবস্থা তা আপনারা জেনে গেছেন এতক্ষণে। এ প্রতিবেদন লেখার সময়ও বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ ছিল। উইকেট ঢাকা ছিল কাভার দিয়ে।

খালেদের অর্জন বৃথা গেছে ব্যাটসম্যানদের মলিন পারফরম্যান্সের কারণে। ৩১.৩ ওভার বোলিং করে ১০৬ রানে ৫ উইকেট পান তিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজে এই প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটের স্বাদ পেলেন বাংলাদেশের কোনো পেসার। খালেদের দারুণ বোলিংয়ের দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংসে ৪০৮ রান করে। জবাবে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশের তৃতীয় দিনশেষে সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৩২ রান। মিরাজ শূন্য ও নুরুল হাসান সোহান ১৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। ৪২ রানে পিছিয়ে থেকে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবে বাংলাদেশ।

advertisement 3

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও ব্যর্থ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। অ্যান্টিগা টেস্ট হেরেছে চার দিনে। প্রথম টেস্টে টপঅর্ডার ছিল ব্যর্থ। সেন্ট লুসিয়া টেস্টেও সেই একই চিত্র। ব্যাটসম্যানরা যেন রান করতেই ভুলে গেছেন। তার খেসারত দিতে হচ্ছে দলকে। তৃতীয় দিনে তিনবার হানা দিয়েছিল বৃষ্টি। তা না হলে হয়তো তৃতীয় দিনেই ম্যাচের রেজাল্ট হয়ে যেত! আর চতুর্থ দিনে তো নির্ধারিত সময়ে খেলাই শুরু করা যায়নি। তবে দুই টেস্টের চিত্রটা কিন্তু একই। যেখানে ব্যাটসম্যানরা পারফরম করতে পারছেন না।

advertisement 4

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে অলআউট হয়। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৭ রান তুলতেই তামিম, জয়, বিজয় ও লিটনের উইকেট হারায়। পঞ্চম উইকেটে লড়াই করেন সাকিব ও শান্ত জুটি। তারা ৬১ বলে ৪৭ রান স্কোরকার্ডে যোগ করেন। শান্ত উইকেটে থিতু হওয়ার পরও তার ইনিংসকে বড় করতে পারেননি। ৯১ বলে ৪২ রান করেন তিনি। আর সাকিব ফেরেন ৩২ বলে ১৬ রানে। ১১৮ রান তুলতে ৬ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এর আগে তৃতীয় দিনে ৫ উইকেটে ৩৪০ রানে ইনিংস শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কাইল মেয়ার্স ১২৬ ও জশুয়া ডি সিলভা ব্যক্তিগত ২৬ রানে ব্যাটিংয়ে নামেন। মেয়ার্স ১৪৬ রান করেন। দা সিলভা ২৯ ও কেমার রোচ ১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। খালেদ ও শরিফুল মিলে ৭ উইকেট পান। মিরাজ ৩টি। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশকে ধসিয়ে দিয়েছেন কেমার রোচ। ৩৩ বছর বয়সী ডানহাতি এ পেসার ৩ উইকেট শিকারের মধ্য দিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে ২৫০ উইকেট শিকারের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন। ১৩২ ইনিংসে তার শিকার ২৫২ উইকেট।

advertisement