advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কুমিল্লার বরুড়া
পিটিয়ে ছাত্র হত্যার অভিযোগে মাদ্রসার শিক্ষক আটক

বরুড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
৬ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৬ আগস্ট ২০২২ ১২:৩৪ এএম
advertisement

কুমিল্লার বরুড়ায় শিহাব হোসেন (১১) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রকে বেত দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। গতকাল শুক্রবার মারা যায় শিশুটি। এ ঘটনায় আবদুল ওহাব (৩৫) নামে এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

advertisement

পরিবার সূত্রে জানা যায়, শিহাব ঝলম ইউনিয়নের শশইয়া গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে। সে মেড্ডা আবদুল মতিন নুরানি হাফেজিয়া মাদ্রাসায় নুরানি বিভাগে পড়াশোনা করত। গত বুধবার শিহাবের জ্বর হয়েছে বলে মাদ্রাসা থেকে খবর দিয়ে তাকে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে

দেওয়া হয়। রাতে শিহাব পরিবারকে জানায়, মাদ্রাসার শিক্ষক আবদুল ওহাব তাকে বেত দিয়ে অনেক পিটিয়েছেন। এতে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে শুক্রবার সকালে প্রথমে তাকে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। দুপরে কুমিল্লা মেডিক্যালে নিলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. সোহেল রানা বলেন, শিশুটির অবস্থা ভালো ছিল না। তাই তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার জন্য বলা হয়। পরে শুনেছি পথেই সে মারা গেছে।

বরুড়া থানার ওসি (তদন্ত) মো. নাহিদ আহমদ জানান, মাদ্রাসার শিক্ষক মো. আবদুল ওহাবকে আটক করা হয়েছে। তিনি সদর দক্ষিণ উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের মো. বাবুল মিয়ার ছেলে।

বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, আমি ঘটনাস্থলে আছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে মাদ্রাসার মুহতামিম (প্রধান) মাওলানা আহমেদ শফি বলেন, ‘আমি পুলিশ ও শিশুটির পরিবারের সঙ্গে কথা বলছি। পরে আপনাদের সঙ্গে কথা হবে’ বলেই কল কেটে দেন।

advertisement