advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফেসবুকে পাওনা টাকা চাচ্ছেন শিল্পীরা!

বিনোদন প্রতিবেদক
৯ আগস্ট ২০২২ ১২:০৭ পিএম | আপডেট: ৯ আগস্ট ২০২২ ০২:০৯ পিএম
শুটিংয়ের দৃশ্য। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

সময়মতো শুটিংয়ে না আসা, অভিনয় শিল্পী-নির্মাতা-কলাকুশলিরা তাদের পারিশ্রমিক না পাওয়া শোবিজে এমন ঘটনা নতুন কিছুই নয়। বিগত কয়েক বছররের ইতিহাস টানলে এমন ঘটনা অহরহ সামনে আসবে। শিল্পী-নির্মাতা ও কলাকুশলিরা তাদের ক্ষোভ প্রকাশের বড় মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোকে। তবে ইদানিং যেন তারা একটু বেশিই স্বোচ্চার হয়েছে। আর গত কয়েকদিন ‘পাওনা টাকা’ না পাওয়ার অভিযোগে অনেকেই পোস্ট দিয়েছেন ফেসবুকে।

পারিশ্রমিক না দেওয়ার বেশির ভাগ অভিযোগ নির্মাতা ও প্রযোজকদের বিরুদ্ধে। আবার অনেক প্রযোজকের দাবি, তারা পরিচালকে টাকা দিয়েও কাজ পায়নি। শোবিজের অনেকই আবার হুঙ্কার দিয়ে উঠেছে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের নাম ও ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করার!

advertisement 3

নির্মাতা আবু হায়াত মাহমুদ সম্প্রতি ফেসবুকে লিখেছেন,‘আর কত অপেক্ষা করব? ৬ বছর ধরে একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ও তার কর্ণধার আমকে একটি দীর্ঘ ধারাবাহিকের (১৬৮ পর্ব) ডিরেক্টর রেমুনারেশনের হিসাব তো দিচ্ছেই না। চাইলেই এই বসি বসছি, হিসাবটা দিচ্ছি। আর দুই ঈদে সালামির মতো করে কয়টা টাকা পাঠাচ্ছেন। এভাবে ভেঙ্গে ভেঙ্গে আর কত? ধৈর্যটা অনেক বেশিদিন ধরে ফেলেছি। খুব শিগগিরই নাম ছবিসহ প্রকাশ করব। সংগঠনের কর্তা ব্যক্তিদের সঙ্গে আন অফিশিয়ালি বলে রেখেছি। এবার অফিসিয়ালি অভিযোগটা দেবো। আমার প্রাণের সংগঠন কি ব্যবস্থা নেয় ক্ষমতাধর এই প্রডিউসারের সেটার অপেক্ষায় আছি। আমার রেমুনারেশন চাওয়াটা কি অপরাধ?’

advertisement 4

তার এই স্ট্যাটাসের মন্তব্যের ঘরে নির্মাতা গোলাম সোহরাব লিখেছেন, ‘একজন প্রথিতযশা প্রযোজকের ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করেছিলাম, এক প্রথম সারির চ্যানেলের জন্য ৯ বছর আগে। রেমুনারেশন পাই নাই এখনো।’ সেখানে নির্মাতা ইমরাউল রাফাতও লিখেছেন, তিনিও পাঁচ বছর ধরে পারিশ্রমিকের পেছনে ঘুরছেন। সঙ্গে উত্তর দিয়েছেন আরেক পরিচালক রিজাউল রিজু। তার মন্তব্য সেও ক্লান্ত।

অভিনেত্রী কাজী নওশাবাও সম্প্রতি ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সেই কর্মই তোমার, তোমার পরিবারের আহার জোগায়! এই বিশ্বাসে বিশ্বাসী আমি শুধু আমার কর্মটাই ঠিকমতো শেখার চেষ্টা করে যাচ্ছি! এবং যা যা অভিনয় করেছি হয়তো কিছুই হয়নি কিন্তু ফাঁকিবাজি করিনি! আমার সাধ্যমতো দলের সঙ্গে, পাশে থেকেছি! এরপরও আমার এই ছবির মতোন আমার মাথায় হাত দিয়ে ভাবতে হয়, কবে পাবো প্রাপ্য সম্মানি, আদৌ সঠিক অংকটা বিকাশ বা নগদে আসবে তো, নাকি তার সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হবে। আপু বাকিটা পরে দিচ্ছি! সেই পরে আদৌ পরে হয় কিনা সেটা স্বয়ং সৃষ্টিকর্তাও জানেন না বোধ করি! আমার জন্য দোয়া করেন সৃষ্টির্কতা যাতে আমাকে আরও শক্তি আরও ধৈর্য্য দান করেন। আমাদের সকলের বোধ জেগে ওঠে।’ পারিশ্রমিক চেয়ে এমন অসংখ্য স্ট্যাটাস ইদানিং বেশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে ফেসবুকে।

এসব অভিযোগ প্রসঙ্গে অভিনয়শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবীব বলেন, ‘অভিনয়শিল্পীদের কাছ থেকে আমরা অনেক অনেক অভিযোগ পাই। আর আমরা চেষ্টা করি তাদের অভিযোগগুলোর সমাধান করতে। পাওনা টাকার বিষয়টি নিয়েও আমাদের কাছে অনেক শিল্পীরা অভিযোগ করেছেন। আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করে অনেকের টাকা আদায়ও করে দিয়েছি। আর কিছু অভিযোগ এখননো আছে। সেগুলো নিয়ে আমরা কাজ করছি।’

advertisement